পা’ইলস ও ক্যান্সারসহ নয় ক’ঠিন রোগের ঝুঁকি কমায় কাঁ’চা কাঁঠাল!

পাকা কাঁঠাল সবাই খেয়ে থাকেন। তবে কাঁচা কাঁঠাল খেয়েছেন কি? কাঁচা কাঁঠাল এঁচোড় নামেও পরিচিত। খেতে বেশ সুস্বাদু হয় কাঁচা কাঁঠালের তৈরি রেসিপিগুলো। পাকা কাঁঠালের মতো কাঁচা কাঁঠালও পুষ্টিগুণে পরিপূর্ণ। বাজারে এখন খুব সহজেই আপনি পেয়ে যাবেন কাঁচা

 

কাঁঠাল।আমাদের শ’রীরের জন্য কাঁচা কাঁঠাল বেশ উপকারী। কাঁঠালে বিটা ক্যারোটিন, ভিটামিন এ, সি, বি-১, বি-২, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়ামসহ নানা রকমের পুষ্টি ও খনিজ উপাদান পাওয়া যায়।এসব

 

উপাদান আমাদের শ’রীরকে সুস্থ ও সবল রাখতে সাহায্য করে। এর পাশাপাশি ভিটামিনের চা’হিদাও পূরণ করে কাঁঠাল। চলুন জেনে নেয়া যাক কাঁচা কাঁঠালের অন্যান্য পুষ্টিগুণ ও উপকারিতা সম্প’র্কে-

পুষ্টিগুণ:কাঁঠালে সামান্য পরিমাণ প্রোটিন পাওয়া যায়। প্রতি ১০০ গ্রাম পাকা কাঁঠালে ১.৮ গ্রাম, কাঁচা কাঁঠালে ২০৬ গ্রাম ও কাঁঠালের বীজে ৬.৬ গ্রাম প্রো’টিন পাওয়া যায়। এই প্রোটিন দে’হের গঠনে সাহায্য করে। কাঁঠালে রয়েছে শ্বে’তসার। পাকা কাঁঠালে ০.১ গ্রাম, কাঁচা কাঁঠালে

 

০.৩ ও কাঁঠালের বীজে ০.৪ গ্রাম শ্বে’তসার পাওয়া যায়।কাঁঠালে ভিটামিন ‘এ’ পাওয়া যায়। ‘এ’ ভিটামিন দৃষ্টিশ’ক্তি বাড়াতে সা’হায্য করে। কাঁঠালের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান চোখের রেটিনার ক্ষতি প্র’তিরোধ করে। কাঁঠালে ভিটামিন বি-১ ও বি-২ পাওয়া যায়। পাকা কাঁঠালে ০.১১ মি.গ্রা, কাঁচা কাঁঠালে ০.৩ মি.গ্রা ও কাঁঠালের বীচিতে ১.২

 

মি.গ্রা বি-১ পাওয়া যায়।পাকা কাঁঠালে ০.১৫ মি.গ্রা, কাঁচা কাঁঠালে ০.৯ মি.গ্রা এবং কাঁঠালের বীচিতে ০.১১ মি.গ্রা বি-২ পাওয়া যায়। কাঁঠালে রয়েছে ভিটামিন ‘সি’ । পাকা কাঁঠালে ২১ মি.গ্রা, কাঁচা কাঁঠালে ১৪ মি.গ্রা এবং কাঁঠালের বী’জে ১১ মি.গ্রা ভিটামিন ‘সি’ পাওয়া যায়।

কাঁচা কাঁঠালের উপকারিতাউচ্চমানের অ্যান্টি-অ’ক্সিড্যান্ট সমৃদ্ধ ফল কাঁঠাল। এতে ভিটামিন সি রয়েছে প্র’চুর পরিমাণে। তাই কাঁঠাল খেলে শ’রীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। এমনকি ক্যা’ন্সার এবং টিউমারের বিরুদ্ধেও শরীরে প্র’তিরোধ গড়ে ওঠে।এতে

রয়েছে সোডিয়াম এবং পটাসিয়াম, যা শ’রীরের ই’লেকট্রোলাইট ব্যালেন্সকে ঠিক রাখে। এর ফলে রক্তচা’প নিয়ন্ত্রণে থাকে এবং হা’র্টও ভালো থাকে।

> কাঁঠাল ফাইবার-সমৃদ্ধ ফল। যা হ’জমশক্তি বাড়ায় এবং পেট পরিষ্কার রাখে।

> কাঁঠালে রয়েছে প্র’চুর পরিমাণ ভিটামিন এ এবং বিটা ক্যারোটিন। চোখ ভালো রাখতে যা খুবই উপকারী।

> কাঁঠালে অ্যান্টি অ’ক্সিড্যান্ট থাকার ফলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ে ও বলিরেখাও কমে।

> কাঁঠালে রয়েছে ভিটামিন বি৬ এবং প্রচুর পরিমাণ ক্যালোরি। তবে এতে কোনোরকম কোলেস্টেরল নেই।

> কাঁঠালে আয়রন থাকে যা র’ক্তে লোহিতকণিকার পরিমাণ বাড়ায়। তাই র’ক্তাল্পতায় যারা ভুগছেন তাদের কাঠাল খাওয়া উচিত।

> এই ফল নিয়মিত খেলে পাইলস এবং কোলন ক্যা’ন্সারের আশঙ্কা কমে।

> কাঁঠালে ক্যালসিয়াম থাকে যা হাড় শ’ক্ত রাখে।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *