উলিপুরে ইউপি’র উপ-নির্বাচন উপলক্ষে পুলিশ সুপারের ব্রিফিং

এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: ৩০ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং তারিখে কুড়িগ্রাম উলিপুর উপজেলার বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান পদে ও ধামশ্রেনী ধরনীবাড়ি’র দুইটি ওয়ার্ডের মেম্বার পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। স্থানীয় নির্বাচন অফিসার নির্বাচন অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের ৯টি ওয়াডের্র মোট ১৫টি ভোট কেন্দ্র, ধরনীবাড়ি ইউনিয়নের ০৭নং ওয়ার্ডের ২টি ভোট কেন্দ্র এবং ধামশ্রেনী ইউনিয়নের ০২নং ওয়ার্ডের ১টি ভোট কেন্দ্র সর্বমোট ১৮টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে প্রিজাইডিং অফিসারদের নেতৃত্বে প্রয়োজনীয় ব্যালট, ব্যালটবাক্স, সিল কাগজপত্র সহ পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সাথে নিয়ে ভোট কেন্দ্রগুলোতে পৌছানোর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এদিকে উলিপুর থানা পুলিশ প্রশাসনের আয়োজনে এক নির্বাচনী ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। এতে কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান (বিপিএম) প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে নির্বাচনকালীন পুলিশবাহিনীর কার্যক্রম সম্পর্কে গুরুত্বপুর্ন বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রশাসন (পুলিশ সুপার পদে পদন্নোতিপ্রাপ্ত) মেনহাজুল ইসলাম।

উপ-নির্বাচনকে শতভাগ সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য করতে এবং ভোট সেন্টারসহ পুরো এলাকাকে শান্তিপুর্ণ রাখতে জেলাপুলিশ প্রশাসনের বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করার কথা জানা যায়।

পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ঝুকিপুর্ন নয় এমন ভোট সেন্টারে ১ জন এসআই, ২ জন এএসআই সহ ৪ জন পুলিশ কনস্টেবল এবং অস্ত্রসহ ১৭ জন আনসার সদস্য দায়িত্বপালন করবেন। ঝুকিপুর্ন কেন্দ্রগুলোতে পুলিশ সংখ্যা বাড়িয়ে ১০ সদস্যের স্থায়ী টিম করেছে। এছাড়াও আজ রবিবার রাত ৮টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত পুলিশের বিশেষ প্রশিক্ষনপ্রাপ্ত ৬টি মোবাইল টিম পর্যায়ক্রমে টহল অব্যাহত রাখবে। জেলা পুলিশের গোয়ন্দা শাখার টিমকে সিভিলে নজরদারী করার জন্য ইতিমধ্যে মাঠে নামানো হয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়াও বিশেষ কোন পরিস্থিতিকে তড়িৎ নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশের ২টি স্ট্রাইকিং ফোর্স সার্বক্ষণিক প্রস্তুত থাকবে। স্ট্রাইকিং ফোর্সের সংখ্যা, ইকুয়েপমেন্ট, পরিবহন ব্যবস্থা ও যোগাযোগ সবোচ্র্চ সুসজ্জিত ও কঠোর অবস্থানে রেখে স্ট্রাইকিং ফোর্সের ব্যবস্থাপনা শুধুমাত্র জনগনের জানমাল রক্ষায় এবং ছোটবড় যে কোন ধরনের নাশকতা বিশৃংখলা ঠেকাতে কঠোরতম অবস্থান নেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান।

কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম নির্বাচনী পুলিশ ব্রিফিং এ স্পষ্ট দিক নির্দেশনায় বলেছেন, জনগনের জানমাল রক্ষা, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি যে কোন মুল্যে স্বাভাবিক রাখা, ভোটারদের নিরাপত্তা ও স্বাধীন ভোট প্রয়োগে নুন্যতম বিশৃংখলা বা বাধাদান বরদাশত করা হবে না। ভোট সেন্টার ও ভোট বুথগুলোতে শতভাগ সুষ্ঠ ও শান্তিপুর্ন পরিবেশ নিশ্চিত করতে জেলা পুলিশ প্রশাসন অঙ্গীকারবদ্ধ । নির্বাচন ফলাফল পরবর্তী সময় প্রার্থী ও প্রার্থীর কর্মী সমর্থকদের নিয়ন্ত্রনে রাখতে প্রার্থীদের ভুমিকা রাখার আহবান জানিয়েছেন। নির্বাচনের পরিবেশ বিঘ্নিত হলে এবং নির্বাচন পরবর্তী কোন সংঘাত বা আইনশৃঙ্খলা অবনতির চেষ্টা করা হলে এর দায়ভার প্রার্থীদের বহন করতে হবে।

পুলিশ সুপার শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, সুষ্ঠ শান্তিপুর্ন নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। জনগন তথা ভোটারদের স্বাধীন ভোট প্রদান ও শান্তিশৃঙ্খলা এবং সকলের নিরাপদে ঘরে ফেরাকে পুলিশ সর্বোচ্ছ গুরুত্ব দিয়ে দায়িত্ব পালন করবে।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *