1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan :
  2. alireza.kg2014@gmail.com : Ali Reza Sumon : Ali Reza Sumon
  3. hrbiplob2021@gmail.com : News Editor : News Editor
সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় নান্দাইলে করোনার টিকা নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তায় প্রাণ হারালো স্কুল ছাত্রী’র সহ-সভাপতির পিতার মৃত্যুতে কিশোরগঞ্জ জেলা রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের শোক প্রকাশ সেবা সপ্তাহ-২০২২  উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক র‍্যালি জাতীয় সমাজসেবা দিবস উদযাপিত ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে চেক বিতরণ কিশোরগঞ্জে জমকালো আয়োজনে উৎযাপন করা হলো মহামান্য রাষ্ট্রপতির ৭৯তম জন্মদিন কিশোরগঞ্জ পৌরসভায় জাঁকজমকপূর্ণ পরিবেশে মহামান্য রাষ্ট্রপতি’র জন্মদিন পালন সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আমাকে মনোনয়ন দিতে প্রধানমন্ত্রীকে বলেন; প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বিনা হিসেবে যারা জান্নাতে যাবে কিশোরগঞ্জে কিডস এন্ড মাদার্স ফ্যাশন লিমিটেডের শোরুম উদ্বোধন

উলিপুরে ১০ম শ্রেনীর ছাত্রী আলো বিয়ে ছাড়াই ৬ মাস প্রতারিত; অভিযোগ নিয়ে পুলিশের টালবাহানা

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : শনিবার, ১৩ জুন, ২০২০
  • ১১৪ সংবাদটি দেখা হয়েছে

এজি লাভলু, স্টাফ রিপোর্টার

কুড়িগ্রামের উলিপুরে দূর্গাপুর জানজায়গির এলাকায় আখি আলো দশম শ্রেনীর এক ছাত্রীকে মিথ্যা আশ্বাস ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের ক্ষমতার অপব্যবহার করে ছয় মাস নিজের দোকানের গুদামে বউ এর পরিচয়ে রাখে। বিয়ে করার কথা বলায় আখিকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে । এ ঘটনার ছাত্রী নিজে বাদী হয়ে উলিপুর থানায় তার এক ভাই মারফত স্ত্রী ও দুই সন্তানের জনক আহসান হাবীব মিঠুর নামে ১০ই জুন লিখিত অভিযোগ দিলেও এ পর্যন্ত পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় পরিবারটি অনিশ্চয়তায় পরেছে বলে জানা যায়। ।

ঘটনার প্রধান অভিযুক্ত আহসান হাবীব মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল হকের ছেলে এবং ব্যক্তি জীবনে বিবাহিত স্ত্রী ও দুই ছেলে একজন ছয় বছরের নাম রাফি, অন্যটি দুই বছরের নাম আয়াত সন্তানের জনক বলে জানা যায়। আখি আলোর অভিযোগ অবৈধভাবে জোরপুর্বক তাকে নিয়ে মাসের পর মাস আলাদা গুদাম ঘরে স্ত্রীর পরিচয়ে রাখছে। সামাজিক, ধর্মীয় ও আইনত বিবাহের কথা বললেই নির্যাতন চালায়, বাবার বাড়িতে গেলে মুক্তি নাই সেখানেও। সকাল বিকাল তাকে ফেরত নিতে চাপ প্রয়োগ করে এবং গরীব কৃষক পরিবার মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের প্রভাব প্রতিপত্তির সাথে কুলিয়ে উঠতে না পেরে বাড়ি ঘড় ছেরে পালিয়ে বেরাচ্ছেন। এক ঘটনায় মামলার আসামী ও মেয়ের নিরাপত্তাহীনতায় আজ ১০ দিন ঘড় বাড়ি ছেরে পালিয়ে বেরাচ্ছে বলে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দূর্গাপুর লালখারটারী এলাকার আলমগীর হোসেনের মেয়ে আখি আলো কামাল খামার দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেনীর একজন মেধাবী ছাত্রী। আখি আলো অষ্টম শ্রেনিতে বৃত্তি পেয়েছিলো ও প্রত্যেকটি ক্লাশ শ্রেনী পরীক্ষায় প্রথম / দ্বিতীয় হয়ে আসা মেয়েটির ভাগ্য অনিশ্চিত গন্তব্যের দিকে ধাবিত হলেও সুবিচার মিলছে না কোথাও । ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইং আহসান হাবীব রংপুরে ১ মাস ঘড় ভাড়া করে আখি কে নিয়ে বউ এর মত ব্যবহার করে বলে আখি তার লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেছে। এরপর বাড়িতে ফিরে বিবাহ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতারনামুলক ভাবে ৫/৬ মাস ধরে ঘড় সংসার করার নামে জানজাগির বাজারের নিজস্ব গুদাম ঘরে ধর্ষন ও নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে।

আহসান হাবীব মিঠু র সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে, সে আখির সাথে ঘড় সংসার করার কথা স্বীকার করে। তিনি কুড়িগ্রাম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন, মামলার বিষয়ে কিছু জানতেন না। বিয়ে না করে ৬ মাস ঘর সংসার ও মারামারিতে যারা ছিলো না এমন নিরাপরাধ মহিলাদের আসামী করে মামলা দেয়ার সদুত্তর তিনি দিতে পারেননি। আহসান হাবীব মিঠু আখি আলোকে আবার ফিরিয়ে নিবে কিন্তু আইন ও সামাজিক বৈধতা কিভাবে আসবে সে বিষয়ে সঠিক জবাব দিতে পারে নাই। স্থানীয়দের অভিযোগ বিভিন্ন কৌশল, হয়রানি ও ভয়ভীতির উপর আখিকে নিজের বউ বলে মানসিক বিকৃতির পরিচয় দিলেও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান হওয়ায় ক্ষমতার দাপটে গ্রামবাসী চুপচাপ সহ্য করে যাচ্ছেন।

দূর্গাপুর ইউপি মেম্বার নুর ইসলাম আখি ও আহসান হাবীব মিঠুর একসাথে জানজাগীর বাজারে দোকান গুদামে বিবাহিত পরিচয়ে জীবন যাপন করেছেন বলে স্মীকার করেন। আখি আলো ঐ গুদাম ঘরে থাকাকালিন স্থানীয় মেম্বার হিসেবে বৈধতা ছারা তাকে নিয়ে আছে এমন বিচার দেয়ার কথাও স্মীকার করে নুরইসলাম বলেন, ছেলে বিবাহিত দুই ছেলের বাবা এখানে আমাদের কিছু করার ছিলো না। আখি আলো ঐ ছেলের হাত থেকে মুক্তি চেয়েছিলো কি না এমন প্রশ্নের জবাবে মেম্বার নীরব ছিলেন। তিনি এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে আলমগীর হোসেন আহসান হাবীব কে মারধোরের করার জন্য আফসোস করে বলেন, পুরো ঘটনাটি জটিল হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে উলিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, এ ঘটনায় পুরো দোষ মেয়েদের। এতদিন চুপ ছিলো এখন বাপ আসামী হওয়ায় আখি ছেলের বিরুদ্ধে নতুন করে অভিযোগ আনছে। আখির বাবা মেয়ের জীবন নষ্ট করার রাগে রাস্তায় মারপিট করেছে এমন অভিযোগ মেনে নিয়ে ওসি মোয়াজ্জেমকে প্রশ্ন করা হয়, আখি ও তার মা এবং অপরাপর নিরাপরাধ মানুষরা আসামী হওয়ায় আখি আলোর সাথে বিয়ের নামে যে ধর্ষন করা হয়েছে তার আইনি সহায়তায় আখির অভিযোগ আমলে নিতে বাধা কি? এর জবাবে তিনি বলেন, এ বিষয়টা উলিপুর সার্কেল বি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল মাহমুদ স্যার দেখবেন।

১২ জুন স্বন্ধ্যায় আখি আলোর ভাই মোনতাসির বিল্লাহ অতিঃ পুলিশ সুপার আল মাহমুদ হাসানের সাথে অফিসে আখির পাঠানো অভিযোগের খোজ খবর নিতে গেলে অতিঃ পুলিশ সুপার জানান কোন অভিযোগ তার হাতে আসে নাই। ১০ জুন উলিপুর থানা ডিউটি অফিসার এএসআই দুলুর হাতে দেয়া আখির অভিযোগ পত্র কোথায় জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্পর্শকাতর অভিযোগ মনে হওয়ায় তিনি তা ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন কে দিয়েছেন। সূত্র টেনে লিখিত অভিযোগটি এএসপি আল হাসান মাহমুদ পাননি এমন প্রশ্নে তিনি আর একটি নতুন কাগজ জমা দিতে বলেন।

আখির ভাই বিল্লাহ জানান, অতিঃ পুলিশ সুপার আল মাহমুদ অভিযোগ পত্রটি হাতে নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। প্রশাসন আখির অভিযোগটি গ্রহণ করে তদন্তপুর্বক আদৌ ব্যবস্থা নিতে অগ্রসর হবেন কি না তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্ট সকলে।

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

All rights reserved © 2021 Newsmonitor24.com
Theme Customized BY IT Rony