1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan :
  2. alireza.kg2014@gmail.com : Ali Reza Sumon : Ali Reza Sumon
  3. hrbiplob2021@gmail.com : News Editor : News Editor
মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:২৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:-

এ’খনো গ’ভীর রা’তে কেঁ’দে ও’ঠেন আ’বরার ফা’হাদের মা।

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২১ মে, ২০২০
  • ৮৬ সংবাদটি দেখা হয়েছে

কমা মুখের কাছে নিয়েও তা মুখে দিতে পারেন না। চোখ থেকে অঝোরে গড়িয়ে প’ড়ে পানি। কখনও কখনও আবরারের পোশাক বসে বিলাপ করেন একা একা।

কথাগু’লো বলছিলেন আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ। কথা বলার এক পর্যায়ে নিজে’র পকেট থেকে রুমাল বের করে চোখ মুছেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে কথা হয় বরকত উল্লাহর স”ঙ্গে।কেমন আছেন? জানতে চাইলে বরকত উল্লাহ এনটিভি অনলাইনকে বলেন,

‘বুকে পাথর চে’পে যেভাবে থাকা যায়, সেভাবেই বেঁ’চে আছি। তবে কোনোভাবেই আবরারের মাকে বোঝাতে পারছি না। কি বুঝ দেব তাঁকে? আবররার তো তাঁর নাড়ী ছেঁ’ড়া ধন।

’বরকত উল্লাহ বলেন, ‘আবরারের ব্যবহার করা বিভিন্ন জিনিসগু’লো চোখের সামনে পড়লেই হাউমা’উ করে কেঁ’দে ওঠেন তিনি (আবরারের মা)।

ধৈর্য্য ধ’রে আল্লাহকে স্মর’ণ করার কথা বললেই আবরারের মা জা’নায়, এগু’লোতে আবরারের শ’রীরের ঘ্রাণ পায় ও। আবরারকে দে’খতে পায়।

আবরার তো এগু’লোর ভেতরেই আছে।’ কখনো কখনো আবরারের কষ্টের কথা আউড়িয়ে চি’ৎকার করে উঠেন আবরারের মা।বরকত উল্লাহ বলেন,

ওরা (হ’ত্যাকা’রীরা) আমা’র আবরারকে সারা রাত পি’টিয়ে পি’টিয়ে হ’ত্যা করল। সারা শ’রীর তার থে’তলে দিল। সে একটু পানি পান ক’রতে চেয়েছিল। তারা তা্ও দিল না।

পানির তৃষ্ণায় আমা’র আবরারের বুকটা ওই সময় কত জানি হাহাকার করছিল। ওই সময় আবরার না জানি কতটা ছটফট করছিল। এসব কথাই বারবার মনে করে কেঁ’দে ওঠেন আবরারের মা। সারাক্ষণ শুধু এ কথাগু’লোই বিড়বিড় করে বলে থাকেন।’ এ কথাগু’লোর বলার পর আর বেশি কিছু বলতে পারলেন না বরকত উল্লাহ। নির্বাক দৃষ্টিতে কিছুক্ষণ তাকিয়ে রইলেন।আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে বরকত উল্লাহ গু’লশানে আ’ইনমন্ত্রী আনিসুল হকের স”ঙ্গে দেখা ক’রতে তাঁর গু’লশানের বাসায় যান।

সেখানে আ’ইনমন্ত্রীর কাছে তিনি মা’মলা পরিচালনায় প্রসিকিউশন টিমে (রাষ্ট্রপক্ষের আ’ইনজীবীদল) দুজন আ’ইনজীবী নিয়োগের অনুরো’ধ করেন। সেই স”ঙ্গে এ মা’মলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থা’নান্তর করে মা’মলা দ্রুত নিষ্পত্তির অনুরো’ধ জা’নান। আ’ইনমন্ত্রী তাঁর এ অনুরো’ধ র’ক্ষা করবেন বলে আশ্বা’স দেন।আ’ইনমন্ত্রীর বাসা থেকে বের হওয়ার পর বরকত উল্লাহর স”ঙ্গে কথা এনটিভি অনলাইনের এ প্রতিবেদকের।

আ’ইনমন্ত্রীর স”ঙ্গে সাক্ষাতের কারণ জানতে চাইলে আবরার ফাহাদের বাবা বলেন, ‘সরকার আমা’র ছেলের হ’ত্যাকা’ণ্ডের ন্যায় বিচারের বি’ষয়ে শুরু থেকেই সচে’তন রয়েছে। আন্তরিকতার স”ঙ্গেই ত’দন্ত কাজ শেষ করেছে। আ’দালতে অ’ভিযোগপত্র দেওয়া হয়েছে। এখন বিচার হবে। আমর’া চাই প্রত্যেক আ’সামির সর্বো’চ্চ সাজা নি’শ্চিত হোক। এ কারণেই আমর’া দুইজন আ’ইনজীবী নিয়োগের কথা বলেছি।

’বরকত উল্লাহ আরো বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে গিয়ে কোনো মা-বাবার বুকের ধন এভাবে যেনো নি’র্যা’তনের শি’কার হয়ে মা’রা না যায় আমর’া এটিই চাই। ছেলে হা’রানোর ব্য’থা যে কতটা কষ্টের ও য’ন্ত্রণার সেটা আমর’া বুঝি। এ কষ্ট আর য’ন্ত্র’ণা যেনো আর কোনো মা বাবাকে বহন ক’রতে না হয়, এ জন্য আসামীদের সর্বো’চ্চ শা’স্তি হোক আমর’া এটিই চাই।’

গত ৬ অক্টোবর দিবাগত রাতে বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে ভিন্নমত পোষণের অজুহাতে পি’টিয়ে হ’ত্যা করে ছাত্রলীগের নেতারা। পরদিনই আবরারের পিতা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ছাত্রলীগের নেতাদের বিরু’’দ্ধে একটি হ’ত্যা মা’মলা দা’য়ের করেন।গত ১৩ নভেম্বর ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আ’দালতে ছাত্রলীগের ২৫ জন নেতাক’র্মী র নামে অ’ভিযোগপত্র পেশ করে ঢাকা মহানগর পু’লিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)। হ’ত্যাকা’রীদের মধ্যে চারজন পলা’তক এবং বাকি ২১ জন গ্রে’’’প্তার হয়ে কা’রাগারে আছেন।

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

All rights reserved © 2021 Newsmonitor24.com
Theme Customized BY IT Rony