এবার প্র’ধানমন্ত্রীর ২৫ কোটি টা’কা পেলেন যেসব চা’করিজীবীরা।

ব’র্তমানে দেশে দিনকে দিন প্রা’ণঘাতী করো’নাভাই’রাসের বিস্তার বেড়েই চলছে।যার কারণে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বেশকিছু সরকারি দপ্তরে ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার।

এ’দিকে সারাদেশের পৌরসভা’র কর্মক’র্তা ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই অর্থ বরাদ্দের অনুমোদন দেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, পৌরসভা’র কর্মক’র্তা ও কর্মচারীদের বেতন-ভাতা পরিশোধের লক্ষ্যে বৃহস্পতিবার সকালে ত্রাণ তহবিল থেকে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দের অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।করো’নাভাই’রাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায় গত ২৬ মা’র্চ থেকে দেশে সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাধারণ ছুটি চলছে।

না’না প্র’তিকূলতার মধ্যে ৩২৮টি পৌরসভা তাদের সীমিত সম্পদ নিয়ে করো’না পরিস্থিতি মোকাবিলায় নানা চ্যালেঞ্জ নিয়ে পৌর এলাকায় নিরবচ্ছিন্ন পানি সরবরাহ, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, বিদেশ প্রত্যাগতদের কোয়ারেন্টিন ও জনসাধারণের নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, করো’না প্রতিরোধে মাস্ক বিতরণ, জীবাণুনাশক স্প্রেকরণ, মৃ’ত ব্যক্তির ম’রদেহ দাফন, কর্মহীন মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিতরণে পৌর কর্মচারীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

এ’ছাড়া করো’না সংক্রমণ প্রতিরোধের পাশাপাশি বর্তমানে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে এডিস মশা দমনে তারা সক্রিয়ভাবে কাজ করছে।প্রসঙ্গত, পৌরসভা’র রাজস্ব আদায় সন্তোষজনক পর্যায়ে না থাকায় অধিকাংশ পৌরসভা’র বেতন-ভাতা বকেয়া ছিলো। তা নিরসনের জন্য পৌরসভা’র কর্মক’র্তা-কর্মচারীরা দীর্ঘদিন ধরে দাবি-দাওয়া উত্থাপন করে আসছিলেন।

স্থা’নীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইস’লাম পৌরসভা’র আয় বৃদ্ধির বিষয়ে এবং বেতন-ভাতা পরিশোধে বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করায় রাজস্ব আদায়ের হার আগের তুলনায় বৃদ্ধি পায়। এতে ১৩০টি পৌরসভা নিয়মিত বেতন-ভাতা দিতে সক্ষমতা অর্জন করে।পৌরসভা তাদের সক্ষমতা অর্জনের সঙ্গে কর্মচারীদের বেতন-ভাতা নিয়মিত পরিশোধে সচেষ্ট ছিলো।

কিন্তু করো’না পরিস্থিতির কারণে পৌরসভা’র নিয়মিত রাজস্ব আদায়ের খাত হেল্ডিং ট্যাক্স, ট্রেড লাইসেন্স, হাট-বাজারের ইজারা প্রদান দোকানভাড়াসহ সব ধরনের রাজস্ব আয় প্রায় দুই’মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। এছাড়াও জরুরি সেবা দেওয়ার জন্য ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে প্রায় সব পৌরসভা’র কর্মক’র্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা প্রদান দুরূহ হয়ে পড়েছে।বেতন না পেয়ে দুই মাস পৌরসভা’র কর্মক’র্তা-কর্মচারীরা মানবেতর জীবনযাপন করেছেন। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টিগোচর এলে তিনি ২৫ কোটি অনুদান দেন।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *