1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan :
  2. alireza.kg2014@gmail.com : Ali Reza Sumon : Ali Reza Sumon
  3. hrbiplob2021@gmail.com : News Editor : News Editor
শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৯:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট প্রতি বছরের মতো বৌলাই পীর সাহেব বাড়িতে পবিত্র আশুরা পালিত বউ শ্বাশুড়ির ঝগড়ায় ছেলের আত্মহত্যা কিশোরগঞ্জ জেলা টিসিবি ডিলার এ্যাসোসিয়েশন’র সভাপতি আঃ হেকিম ও সাধারণ সম্পাদক রতন কিশোরগঞ্জে পরকীয়ার জেরে হত্যা; ৪৮ ঘন্টার মধ্যে চার্জশিট দাখিল তাড়াইলে ডা.মমিন ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন শোলাকিয়া জঙ্গি হামলায় নিহতদের স্মরণে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন চিকিৎসকের ফেসবুক পোস্টে অজ্ঞাত রোগীর সন্ধান পেলো স্বজনরা পদ্মা সেতু উদ্বোধন আনন্দের জুয়ার কিশোরগঞ্জে তাড়াইলে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আনন্দ মিছিলের পরিবর্তে ত্রাণ বিতরণ কিশোরগঞ্জে বন্যা কবলিত এলাকায় ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার

করোনার ভ্যাক্সিন আর এন্টিভাইরাল ঔষধ নিয়ে ভুল ধারনা

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : রবিবার, ১২ এপ্রিল, ২০২০
  • ১৬৬ সংবাদটি দেখা হয়েছে

করোনার ভ্যাক্সিন আর করোনার এন্টিভাইরাল ঔষধ নিয়ে চিকিৎসক ছাড়া অন্যদের মাঝে স্পস্ট ধারনা না থাকারই কথা। অনেকেই ভেবে নিয়েছেন যে বাংলাদেশে যে Favipiravir ঔষধটি নিয়ে সরকারী নির্দেশে ট্রায়ালের কার্যক্রম চলছে সেটা বোধহয় করোনার ভ্যাক্সিন।
নিচের লেখাটা পড়লে ধারনা অনেকটাই ক্লিয়ার হবে বলে আশা করা যায়:-

[]ভ্যাক্সিন :- ভ্যাক্সিন মানে হলো টীকা।টীকা দেয়া মানে হলো, টীকা দিলে আপনার শরীর আগে থেকেই নির্দিষ্ট কোন রোগের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ তৈরী করে রাখে।যেন রোগটি শরীরে প্রবেশ করতে না পারে। অর্থাৎ এডভান্স প্রটেকশন।
যেমন-হাম, পলিও,টিটেনাস ইত্যাদির টীকা।

[]এন্টিমাক্রোবিয়াল ঔষধ:- এন্টিমাইক্রোবিয়াল ঔষধ হলো জীবাণু নিবারক/নাশক ঔষধ যা শরীরে জীবাণু প্রবেশ করে রোগ তৈরী করার পর ব্যাবহার করা হয়।যেমন-এন্টিবায়োটিক, এন্টিভাইরাল,এন্টি ফাংগাল, এন্টি প্রটোজোয়াল।
এক্ষেত্রে প্রথমে জীবানু শরীরে প্রবেশ করে রোগ তৈরী করে।তারপর মানুষ নির্দিষ্ট রোগে আক্রান্ত হওয়ার পর যে ঔষধগুলি ব্যাবহার করে রোগ জীবণুকে বিনাশ করে রোগ সাড়ানো হয় তাকে এন্টিমাক্রোবিয়াল ঔষধ বলা হয়।

#সহজ ভাষায় ,
>টীকা দিলে জীবাণুটি শরীরে ঢুকে রোগ তৈরী করতে পারে না।
>আর শরীরে জীবাণু ঢুকে রোগ তৈরী করার পর সেই জীবাণুটি মারার জন্য যে ঔষধ ব্যবহার করা হয় তাকে এন্টিমাইক্রোবিয়াল ড্রাগ বলে।এই হলো পার্থক্য।

#করোনা ভাইরাসের টীকা আবিস্কৃত হয়নি।

কিন্তু কিছু কিছু এন্টিমাইক্রোবিয়াল/এন্টিভাইরাল ঔষধ দিয়ে আক্রান্ত শরীরে জীবানুটির সংক্রমন বন্ধ করা যায় কিনা সেই ট্রায়াল চলছে।
Remdesivir আর Favipiravir হলো সেই ধরনের এন্টিমাইক্রোবিয়াল/এন্টিভাইরাল ঔষুধ যা করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় কাজে লাগানোর জন্য জাপান, বাংলাদেশ, আমেরিকা সহ আরো অনেক দেশেই ট্রায়াল চলছে ।

# মনে রাখবেন, Remdesivir আর Favipiravir কোন টীকা নয়।

আর যেকোন ঔষধের ট্রায়াল সম্পূর্ন ভাবে সফল না হওয়া পর্যন্ত একে কোন নির্দিষ্ট রোগের চিকিৎসায় যথাযত ঔষধ বলে প্রচার ও বিপনন করা অযৌক্তিক ও অনৈতিক।

তবে বিজ্ঞানীরা করোনার টীকা আবিষ্কারের জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।ধারনা করা হচ্ছে খুব শীগ্রই সুখবর আসবে।

আশা করি বিষয়টা সর্বসাধারনের বুঝতে সুবিধা হবে এবার।

ডা:রনক
জাতীয় নাক কান গলা ইনস্টিটিউট,
ঢাকা, বাংলাদেশ।
01924642670
১২/০৪/২০২০

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

All rights reserved © 2021 Newsmonitor24.com
Theme Customized BY IT Rony