ক’রোনার মধ্যে রা’জধানীতে ম’দ্যপ পু’লিশের এএসপির কা’ণ্ড।

মশিয়ুর রহমান নামে ম’দ্যপায়ী এক এএসপি শাহবাগ থানার দারোগা পলা’শ। শুধু তাই নয়, এসময় তিনি তার পরনের হলুদ রংয়ের টি সার্ট ও কালো রংয়ের ফুলপ্যান্ট খুলে ফে’লেন।

এ ম’দ্যপায়ী বেপরোয়া এএসপিকে নিয়ে বে-কায়দায় পরেন শাহবাগ থানার দারোগা পলা’শ। জানা গেছে, গতকাল রোববার রাতে পুলিশ কন্ট্রোলরুম থেকে শাহবাগ থানায় খবর আসে স’চিবালয়ের এক নম্বর গেটের সামনে রাস্তায় একজন পুলিশ অফিসার সিভিলে রাস্তায় পড়ে আছেন।

খ’বর পেয়ে ডিউটিরত এসআই পলা’শ সহকর্মীদের নিয়ে দ্রুত ঘটঁনাস্থলে যেয়ে সেখানে ম’দ্যপ ও বেপরোয়া অবস্থায় তাকে উ’দ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যান।পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় পেয়ে দারোগা কিছুটা নমনীয় হন। কিন্তু তখনো এএসপি দারোগাকে তুলো ধুনা করে ছাড়ছেন।

স্টো’মাক ওয়াশের কথা শুনে এক পর্যায়ে এএসপি হাসপাতাল টিকেট কাউন্টারের সামনে পুলিশের হাত থেকে ছুটে দৌড়ে বের হয়ে গেলে পুলিশও তার পিছু ছোটে।একপর্যায়ে ঢাবি ক্যাম্পাসের শহীদুল্লাহ হলের গেটের সামনে পুলিশ তাকে ধরে ফে’লে। এসময় ধ্বস্তাধ্বস্তির একপর্যায়ে মশিয়ুর তার গায়ের টি সার্ট এবং ফুল প্যান্ট খুলে ফে’লে।

শু’ধু একটি সর্ট হাফপ্যান্ট এবং খালি গায়ে বেসামাল অবস্থায় চি’ৎকার থাকে। তিনি বলেন, এটাতো আমার হল। এখানে আমার ছোট ভাই ব্রাদাররা আছে। আমাকে যেতে দিন। তার ডাক চি’ৎকারে আশপাশে থাকা কয়েকজন ছাত্র ঘটনাস্থলে হাজির হন। তার বি’ষয়টি সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন। এরপরই তাকে হাসপাতালের জরুরী বিভাগে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন।

কি’ন্তু দারোগা তার স্টোমা ওয়াশ না করিয়ে হলের ছাত্রদের হাতে ন্যস্ত করেন।এ ব্যাপারে শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ পুলিশ অফিসার বিসিএস ক্যাডারের একজন এএসপি। এরআগেও একাধিকবার মদ খেয়ে শাহবাগ মোড়ে বেপরোয়া হয়ে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটিয়েছেন। সে ঘটনায় সংশ্লিষ্ট এএসপিকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

তা ছা’ড়া তার বি’রুদ্ধে একাধিক অ’নৈতিক ঘটনার ত’দন্ত চলমান রয়েছে। তার বি’ষয়টি নতুন কিছু নয়।এক প্রশ্নের জবাবে ওসি বলেন, তার এহেন কর্মকাণ্ডের ফলে গোটা পুলিশ বাহিনীর ইমেজ ক্ষুন্ন হচ্ছে। তার বি’রুদ্ধে বিভাগীয় মা’মলার ত’দন্ত চলছে বলেও ওসি মন্তব্য করেন।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *