ক’রোনায় আ’টকাতে পা’রেনি দু’ই ব’ন্ধন….

প্রা’ণঘাতী ক’রোনার কারণে পা’কিস্তানি প্রে’মিকের সঙ্গে অ’নলাইনে বিয়ে করছেন জ’য়পুরহাটের মু’রসালিনা সা’বরিনা।

ব্যাং’ক ক’র্মকর্তা মো’জাফ্ফর রহমানের মেয়ে সাবরিনা আ’মেরিকান অ’নলাইন বি’শ্ববিদ্যালয় ‘ই’উনিভার্সিটি অফ দ্য পিপল’-এ ২০১৮ সাল থেকে পড়ছেন।

সেই সূত্রেই অ’নলাইনে পা’ঞ্জাব প্রদেশের মু’লতানের ই’ঞ্জিনিয়ার মু’হাম্মদ উ’মেরের স’ঙ্গে প্রে’ম হয়।

পা’রিবারিকভাবে এই মার্চ মাসে বি’য়ের সি’দ্ধান্ত হলেও বাধা হয়ে আসে ক’রোনা।

বৃ’হস্পতিবার (২১ মে) বি’কাল ৫টায় জয়পুরহাট পৌ’র শ’হরের কা’শিয়াবাড়ি এ’লাকার কণের বা’ড়িতে অ’নলাইনে বিয়ে পড়ানো হয়। অ’নলাইনে বিয়ে পড়ান মওলানা মো’স্তাফিুজর রহমান।

এই স’ময় অ’নলাইনে সা’বরিনার কবুল পড়া শোনানো হয় ব’র উ’মের এবং তার বাবা বিলাল অ’হম্মেদকে।

একইভাবে অ’নলাইনে ইঞ্জিনিয়ার উমের তার প্রে’মিকা সা’বরিনাকে স্ত্রী হিসেবে ক’বুল ক’রেন।

পা’রিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বি’শ্ববিদ্যালয়ের স্টু’ডেন্টদের নি’জস্ব ও’য়েবসাইটের মাধ্যমে ২০১৯ সালের দিকে পরিচয় ঘটে সাবরিনা ও উমেরের।

প্রে’মের স’ম্পর্ক জানাজানি হলে, উ’ভয় পরিবারের অভিভাবকরা তাদের বিবাহ সম্পন্নের সিদ্ধান্ত নেয়।

সি’দ্ধান্ত মোতাবেক উমের এবং তার পরিবার বাং’লাদেশে আ’সার জন্য ২০২০ সালের ৭ ফে’ব্রুয়ারি ভি’সার জন্য আবেদন করেন।তাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে জ’য়পুরহাটে সা’বরিনা এবং তার পরিবারের খোঁজখবর নেয় স্থা’নীয় গো’য়েন্দা সংস্থা।

ভিসা নিয়ে মা’র্চ মা’সেই উ’মেরের প’রিবার বাংলাদেশে এসে বিয়ে সম্পন্ন করার কথা ছিল।

তবে করোনার কারণে বিয়ে আট’কে গিয়েছিল।পা’কিস্তানের বাহরিয়া বি’শ্ববিদ্যালয়ের ই’সলামাবাদ ক্যা’ম্পাস থেকে ই’লেকট্রিক্যাল ই’ঞ্জিনিয়ারিং পাস করেছেন উ’মের।

তার বাবা বি’লাল আ’হম্মেদ এ’কজন ব্য’বসায়ী।সা’বরিনার বাবা মো’জাফ্ফর রহমান বলেন, মেয়ের স’ঙ্গে পা’কিস্তানি ছেলের প্রে’মের স’ম্পর্ক প্র’থমে মে’নে নিতে চাইনি।

কিন্তু পরে তাদের খোঁজখবর নিয়ে ভালো লেগেছে।

তাদের পরিবার খুবই ভাল। তাই মে’য়ের বিয়ে দিতে সম্মত হয়ে সা’মাজিক যো’গাযোগ মা’ধ্যমেই বিয়ে সম্পন্ন করেছি।

করোনা প’রিস্থিতি স্বা’ভাবিক হলেই জা’মাই এবং তার প’রিবার দেশে এসে অন্যান্য আ’নুষ্ঠানিকতা স’ম্পন্ন করে মে’য়েকে নিয়ে যাবেন।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *