1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan :
  2. alireza.kg2014@gmail.com : Ali Reza Sumon : Ali Reza Sumon
  3. hrbiplob2021@gmail.com : News Editor : News Editor
বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ১১:৫১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার নবাগত অফিসার ইনচার্জের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় নান্দাইলে করোনার টিকা নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তায় প্রাণ হারালো স্কুল ছাত্রী’র সহ-সভাপতির পিতার মৃত্যুতে কিশোরগঞ্জ জেলা রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের শোক প্রকাশ সেবা সপ্তাহ-২০২২  উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট কর্তৃক র‍্যালি জাতীয় সমাজসেবা দিবস উদযাপিত ও প্রতিবন্ধীদের মাঝে চেক বিতরণ কিশোরগঞ্জে জমকালো আয়োজনে উৎযাপন করা হলো মহামান্য রাষ্ট্রপতির ৭৯তম জন্মদিন কিশোরগঞ্জ পৌরসভায় জাঁকজমকপূর্ণ পরিবেশে মহামান্য রাষ্ট্রপতি’র জন্মদিন পালন সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আমাকে মনোনয়ন দিতে প্রধানমন্ত্রীকে বলেন; প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বিনা হিসেবে যারা জান্নাতে যাবে কিশোরগঞ্জে কিডস এন্ড মাদার্স ফ্যাশন লিমিটেডের শোরুম উদ্বোধন

কিস্তির জন্য বাড়ি গিয়ে বসে আছেন এনজিও কর্মীরা।

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১১ জুন, ২০২০
  • ৫৬ সংবাদটি দেখা হয়েছে

ক’রোনাভা’ইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে জুন পর্যন্ত সব এনজিওর কিস্তি আদায় কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। কি’ন্তু সেই নির্দেশনা অমান্য করে হবিগঞ্জের শা’য়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় কিস্তি আদায়ের জন্য গ্রাহকদের চাপ দেয়া হচ্ছে।

কি’স্তি আ’দায়ের জন্য গ্রাহকদের বাড়িতে গিয়ে বসে থাকা ও হুমকি প্রদানের অভিযোগও পাওয়া গেছে। অথচ আয় ও ব্যবসা বন্ধ থাকায় কিস্তি দেয়া নিয়ে বি’ড়ম্বনায় পড়েছেন গ্রাহকরা।

খোঁ’জ নি’য়ে জানা যায়, হবিগঞ্জ উন্নয়ন সংস্থা, নিশান, বিডিএস, আশা, টিএমএসএস, ব্র্যাক ও গ্রামীণ ব্যাংকের মাঠপর্যায়ের কর্মীরা কিস্তি আ’দায়ের জন্য গ্রা’হকদের চাপ দিচ্ছেন। অনেকের কাছ থেকে কিস্তি আদায় করেছেন।

শায়েস্তাগঞ্জ উ’পজেলার অলিপুর, সুতাং, ব্রাহ্মণডুরা, জগতপুর, শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকাসহ বেশ ক’য়েকটি স্থা’নে গ্রাহকদের কিস্তির টাকা পরিশোধের জন্য দোকানে ও বাড়িতে গিয়ে দিয়ে চাপ দিচ্ছেন এনজিও কর্মকর্তারা।

আবার স’ময়মতো কি’স্তি পরিশোধের জন্য ফোন করছে কোনো কোনো সংস্থা।উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নের সুরাবই গ্রামের সৈয়দ ঝিনুক আহমেদ বলেন, স্বাভাবিক সময়ে প্রতিদিন ব্যবসা করে সংসার খরচ ও সপ্তাহে ১৫০০ টাকা কিস্তি পরিশোধ করেছি। প্রায় দুই মাস ক’রোনাভা’ইরাসের কারণে এনজিওর কিস্তি বন্ধ ছিল।

কিন্তু ই’দের পর থেকে এ’নজিও সংস্থা আশা কিস্তির টাকা পরিশোধের জন্য চাপ দেয়া শুরু করেছে।অলিপুরের টেলিকম ব্যবসায়ী সুজন মিয়া বলেন, টানা ল’কডাউনের জন্য দোকান খুলতে পারিনি।

এ কারণে আ’মাদের আয়-রোজগার কমে গেছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকদিন ধরে হবিগঞ্জ উন্নয়ন সংস্থার কর্মীরা কিস্তির জন্য দোকানে এসে চাপ দিচ্ছেন।শা’য়েস্তাগঞ্জ ই’উনিয়নের জগতপুর গ্রামের সোয়েব মিয়া বলেন, শায়েস্তাগঞ্জের বিডিএস সংস্থা থেকে নিয়মিত কিস্তি আদায়ের জন্য চাপ দিচ্ছে। মানসিক চাপ বাড়িয়ে দিচ্ছে তারা।

কি ক’রব বুঝতেছি না।জানতে চাইলে এনজিও সংস্থা আশা শায়েস্তাগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক জিয়াউল করিম বলেন, আমাদের গ্রাহকদের কাছে মা’ঠকর্মীরা যা’চ্ছেন ঠিকই; তবে যারা স্বেচ্ছায় কিস্তি দেন তাদের কিস্তি নেয়া হয়।

কোনো প্র’কারের চা’প সৃষ্টি করা হয় না। আমাদের শাখার প্রায় আড়াই হাজার গ্রাহক। করোনা পরিস্থিতিতে অর্ধেক গ্রাহকও কিস্তি দেননি।এনজিও সংস্থা টিএমএসএস শা’য়েস্তাগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক সাইদুল ই’সলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী আমাদের কার্যক্রম চলছে।

কোনো জো’র-জব’রদস্তি করা হচ্ছে না।এ বিষয়ে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুমি আক্তার বলেন, এ নিয়ে অভিযোগ পাইনি এখনও। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে এনজিওগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। প্রয়োজনে লাইসেন্সও বাতিল করা হবে।

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

All rights reserved © 2021 Newsmonitor24.com
Theme Customized BY IT Rony