1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan :
  2. alireza.kg2014@gmail.com : Ali Reza Sumon : Ali Reza Sumon
  3. hrbiplob2021@gmail.com : News Editor : News Editor
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট কিশোরগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি’র দায়ীত্ব থেকে শরীফকে অব্যাহতি আনন্দ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শেষ হলো SSNIMC এর সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা আপনি কি রোগে ভুগছেন? দেখে নিন কোন রোগের জন্য কোন ডাক্তার দেখাবেন- কিশোরগঞ্জে উন্নত জাতের কচু ফসল ও উৎপাদন কলাকৌশল শীর্ষক প্রশিক্ষণ নারী সাংবাদিক মিতু’র বাড়ির রাস্তায় ঘর নির্মাণ, বাঁধা দেওয়ায় প্রাণনাশের হুমকি নিকলীতে প্রভাবশালীর হাতে সাংবাদিক লাঞ্ছিত থানায় অভিযোগ নান্দাইলে টাকা দিল দেড় লক্ষাধিক,পেল না সেচ সংযোগ ৪৮ বোতল বিদেশী মদ ও গাঁজাসহ তাড়াইল থানা পুলিশের হাতে আটক ৫ “মেঘ বর্ষণ” সমাজ কল্যাণ সংস্থা’র মেধাবী ও অসহায়দের আর্থিক সহায়তা প্রদান শৃঙ্খলা রক্ষার্থে আমরা আগের চেয়েও বেশি একাগ্রতা নিয়ে কাজ করব- এসপি কিশোরগঞ্জ

গুদাম ভর্তি করার সময় হাতেনাতে ধরল উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তাকে

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : বুধবার, ২৭ নভেম্বর, ২০১৯
  • ১৫৫ সংবাদটি দেখা হয়েছে

এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: নতুন ধান আসার আগেই ২০১৬-১৭ সালের চাল দিয়ে গুদামভর্তি করার সময় হাতেনাতে ধরা পড়েছেন কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলা খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোয়ারুল ইসলাম।

গতকাল (২৬ নভেম্বর) ভোরে ৭৪ বস্তা পুরাতন চালসহ একটি ট্রলি আটক করা হয়েছে। আটককৃত চালের বস্তার গায়ে খাদ্য অধিদপ্তরের ২০১৬-১৭ ও ১৮ সালের সিল ছিল।

গুদাম ভরছে পুরনো ধান দিয়ে


বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের সন্দেহ হলে জাতীয় জরুরি সেবার ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে জানিয়ে দেন। ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে চালসহ ওই ট্রলি জব্দ করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। এই ফাঁকে গুদাম কর্মকর্তাসহ চালের মালিক পালিয়ে যান।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গতকাল ভোরে উলিপুর খাদ্যগুদামে তিনটি ট্রলিভর্তি চাল নিয়ে আসা হয়। এ সময় ভারপ্রাপ্ত খাদ্যগুদাম কর্মকর্তা মনোয়ারুল ইসলামের উপস্থিতিতে তাড়াহুড়ো করে চাল খালাস করেন শ্রমিকরা। বিষয়টি দেখে স্থানীয়দের সন্দেহ হয়। তখন ৯৯৯ নম্বরে কল করলে উলিপুর থানা পুলিশের এসআই মশিউর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছান। তারা আসার আগেই দুটি ট্রলি, চালের মালিক ও ভারপ্রাপ্ত গুদাম কর্মকর্তা পালিয়ে যান।

বস্তা খুলে দেখা যায়, বস্তাভর্তি এসব চাল নিম্নমানের এবং অনেক পুরাতন। বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হলেও উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বিকেলে বিষয়টি প্রকাশ হয়ে যায়।

উলিপুর থানা পুলিশের এসআই মশিউর রহমান বলেন, অফিস শুরু হওয়ার আগেই সরকারি গুদামে কেন নিম্নমানের পুরাতন চাল তোলা হচ্ছে তা শ্রমিকদের কাছে জানতে চাইলে সদুত্তর দিতে পারেননি। এ সময় সেখান থেকে ৩০ কেজি ওজনের ৭৪ বস্তা চালসহ একটি ট্রলি আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

জানতে চাইলে খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোয়ারুল ইসলাম বলেন, গতকাল (২৬ নভেম্বর) আমার দায়িত্ব হস্তান্তরের কথা। সে কারণে গুদামের মজুত ঠিক করছিলাম।

এ বিষয়ে জানতে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক হেমন্ত বর্মনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

ওসি মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, ৯৯৯ থেকে ফোন আসায় সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। গুদামের ভেতরে থেকে মালিকবিহীন ট্রলিবোঝাই চাল জব্দ করে থানায় আনা হয়। চালের প্রকৃত মালিকের খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উলিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল কাদের বলেন, খবর পেয়ে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি তদন্ত করে খাদ্য নিয়ন্ত্রককে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

All rights reserved © 2021 Newsmonitor24.com
Theme Customized BY IT Rony