জমে উঠছে উলিপুরের বুড়াবুড়ি ইউপি’র উপ-নির্বাচন

এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ এর আসন্ন উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করায় উৎসব মুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আগামী ৩০ ডিসেম্বও ২০১৯ ইং তারিখে বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নির্বাচনে উৎসব মুখর পরিবেশে প্রাথর্ীরা তাদের নির্বাচনী প্রচারণার কাজ চালাচ্ছে।

আসন্ন নির্বাচনে সমানতালে প্রাথর্ীরা শীতকে উপেক্ষা করে প্রতিদিন সকালে ভোটারদের কাছে ছুটে যাচ্ছে। নির্বাচন সুষ্ঠ ও অবাধ নিরপেক্ষ করতে উলিপুর উপজেলার নির্বাচন অফিসার মোঃ আহসান হাবিব সার্বক্ষণিক নজরদারি রাখছেন।

এ নির্বাচনে বৈধ প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান পদে মোঃ আসাদুজ্জামান খন্দকার (এরশাদ) নৌকা প্রতীক, মোঃ সহিদুর রহমান লাঙ্গল প্রতীক, সুলতানা রাজিয়া আনারস প্রতীক, মোঃ আবু তালেব সরকার অটো রিক্সা প্রতীক, মোঃ সাইদুল ইসলাম মটর সাইকেল প্রতীক, মোছাঃ ফেরদৌসী বেগম চশমা প্রতীক ও মোঃ মতিউর রহমান (লাল) ঘোড়া প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দিতা করছেন। কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই এখন পর্যন্ত উৎসবমুখর পরিবেশ নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করছেন প্রাথর্ীরা।

বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের দেলদারগঞ্জ বাজারে অটো রিক্সা মার্কার পোস্টার লাগাতে জনৈক ফেরদৌস আলী বাধা প্রদান করেছে বলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রাথর্ী আবু তালেব সরকার দাবি করেছেন। এদিকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত নৌকা মার্কার প্রাথর্ী আসাদুজ্জামান খন্দকার (এরশাদ) এর সমর্থকদের দাবি বকসীগঞ্জ বাজার এলাকায় নৌকার মার্কার পোস্টার লাগানোর পরে রাতের আঁধারে কে বা কারা পোস্টার ছিড়ে ফেলছে। এখন পর্যন্ত পোস্টার ছেড়ার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ ছাড়া কোন প্রকার সহিংস ঘটনার অভিযোগ পাওয়া যায়নি। স্বতন্ত্র প্রার্থী সুলতানা রাজিয়া আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা চালালেও তিনি অভিযোগ করে বলেন, অনেক প্রাথর্ী ভোটারদের সমর্থন আদায়ে কালো টাকা খরচ করছে। কালো টাকা খরচ করার কারণে স্বতন্ত্র প্রাথর্ীরা তাদের সাথে কুলিয়ে উঠতে পারছে না। সাধারণ ভোটারদের দাবি নির্বাচনী পরিবেশ সুষ্ঠু ও অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য প্রশাসন সার্বিক সহযোগিতা করবেন বলে তারা আশাবাদি।

এদিকে আওয়ামী লীগের দলীয় নৌকা মার্কার প্রার্থী আসাদুজ্জামান খন্দকার (এরশাদ), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবু তালেব সরকার অটো রিক্সা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণায় অন্যান্য প্রাথর্ীদের তুলনায় অনেকটাই এগিয়ে রয়েছেন। আবু তালেব সরকারের সমর্থনে প্রতিদিন অটো রিক্সা মার্কার পক্ষে কয়েকশত নেতাকর্মী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ভোট প্রার্থনা করছে। নৌকা মার্কার প্রার্থী আসাদুজ্জামান খন্দকার (এরশাদ) এর সমর্থনে আওয়ামী লীগের দলীয়ভাবে প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে দলীয় লোকজন কমিটি করে নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

নির্বাচনের ব্যাপারে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু তালেব সরকার বলেন, বিগত কয়েকটি নির্বাচনে আমি অংশ নিয়েছি। যদিও দলের বাইরে থেকে নির্বাচন করছি, নির্বাচনের আগে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দলীয় ভোটে আমিই বিজয়ী হয়েছিলাম। একটি ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলায় জেলে থাকার কারণে আমাকে দলীয় প্রতীক দেয়া হয় নাই। তবুও বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের সর্বস্তরের লোকজন আমার পক্ষে আছে। আমি আশা করি জনগনের ভোটে নির্বাচনে বিজয়ী হবো। জনগনের আশা আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটাবো।

জাতীয় পার্টির সমর্থিত প্রার্থী মোঃ সহিদুর রহমান লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। তিনি বলেন, মানুষ পরিবর্তন চায়। শান্তির জন্য পরিবর্তন। উন্নয়নের জন্য পরিবর্তন। আর পরিবর্তন এনে দিতে পারে একমাত্র জাতীয় পার্টি। পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদের লাঙ্গল প্রতীক এনে দিতে পারে গ্রাম বাংলার মানুষের উন্নয়ন। উন্নয়নের স্বার্থে লাঙ্গল প্রতীকে মানুষ ভোট দিবে।

অপরদিকে, আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থী আসাদুজ্জামান খন্দকার (এরশাদ) বলেন, উন্নত ও সমৃদ্ধ বুড়াবুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ গঠনের স্বার্থে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে মানুষ নৌকা মার্কার প্রার্থীকে বিজয়ী করবে ইনশাআল্লাহ্।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *