তো’রা এ’খন আর ছোট নেই, অনেক বড় হয়ে গেছিস : মুশফিককে গাঙ্গু’লি।

ও’য়েস্ট ই’ন্ডিজের মাটিতে হওয়া ২০০৭ সালের বিশ্বকাপের সময় ভারতের প্রায় সব খেলোয়াড়ের বাড়ির সামনেই বি’ক্ষো’ভ করেছিল সে দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা।

অ’ধিনায়ক রাহুল দ্রাবিড়ের বাড়ির সামনে দেয়া হয়েছিল আ’গুন।

কে’ননা সেবার প্রথম রাউন্ডেই বাদ পড়েছিল শিরোপা প্রত্যাশী দলটি।

তা’দের বা’দ করার পেছনে সবচেয়ে বড় হাত ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের।

গ্রু’পপর্বের ম্যাচে রাহুল দ্রাবিড়, শচিন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গু’লি, ভিরেন্দর শেবাগ, যুবরাজ সিং, জহির খানদের ভারতকে হা’রিয়ে বিশ্বকাপ থেকেই বিদায় করে দিয়েছিল বাংলাদেশ।

নি’জেরা প্র’থমবারের মতো পেরিয়েছিল বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব।

পো’র্ট অব স্পেনের সেই ম্যাচে শুরু থেকেই ছিল বাংলাদেশের আধিপত্য।

বো’লিংয়ে ত’রুণ মাশরাফি বিন মর্তুজা, মোহাম্মদ রফিক ও আব্দুর রাজ্জাকদের ঘূর্ণির পর ব্যাটিংয়ে তিন যুবা তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহীমের কাঁধে চড়েই জয় পায় টাইগাররা।

সে’ই ম্যা’চের প্রথম ইনিংসেই সৌরভ গাঙ্গু’লি জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশ আর ক্রিকেটশক্তিতে ছোট দেশ নেই, হয়ে গেছে অনেক বড়।

তি’নি এ কথাটি বলেছিলেন মুশফিকের এক কথার জবাবে।

যা প্রা’য় তের বছর আজ (বৃহস্পতিবার) এক ফেসবুক লাইভে জানিয়েছেন মুশফিক নিজেই।

প্র’সঙ্গে এসেছিল ক্রিকেট মাঠে স্লেজিংয়ের।

ত’খন মু’শফিক জানান, তিনি কখনও কাউকে সেভাবে স্লেজিং করেন না।

তা’র ভাষ্য, ‘খেলার ভেতরে স্লেজ বলতে ওরকম ক’ষ্ট দিয়ে আসলে কাউকে কিছু বলা হয় না।

আ’মি এটা কখনও করি না।

’ত’বে কৌশলগত কারণে যে টুকটাক কথা বলা, সেটা একদমই বাদ রাখেন না মুশফিক।

তে’মনই এক কান্ড ঘটিয়েছিলেন ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচে।

সে স্মৃ’তিচারণই করেছেন মুশফিক।তিনি বলেন, ‘স্লেজিং না করলেও, কখনও কখনও কিছু কথা তো বলতেই হয়।

২০০৭ সালে’ একটি স্লেজিংয়ের কথা মনে আছে আমার।

ম’জার একটা ঘটনা।

(বি’শ্বকাপে) আমার প্রথম ম্যাচ ছিল।

সৌ’রভ গাঙ্গু’লি তখন ব্যাটিংয়ে।

ফি’ফটি করেছিলেন সেদিন।

অ’নেকক্ষণ ছিলেন উইকে’টে।

উ’নি তো কলকাতার, তাই বাংলা ভালোই বোঝেন।’

আ’মাদের রাজ ভাই অথবা রফিক ভাইয়ের একজন বোলিং করছিলেন।

ত’খন আমি তাকে বলেছিলাম, ‘দাদা, আপনি এত মারছেন কেন? আমরা আপনার ছোট ভাই না? এত মারলে হবে? একটু ছাড়-টাড় দেন।

ত’খন গাঙ্গু’লি জবাবে বললেন, না, না! তোরা আর ছোট নেই।

অ’নেক বড় হয়ে গেছিস।

তো’দেরকে ছাড় দেয়া যাবে না।

’গা’ঙ্গু’লির কথাকে সত্য প্রমাণ করে সেদিন ঠিকই বড় দলের মতো ম্যাচ জিতেছিল বাংলাদেশ।

শ’ক্তিশালী ব্যাটিং লাইন-আপ সমৃদ্ধ ভারতকে মাত্র ১৯১ রানে গুটিয়ে দিয়েছিলেন মাশরাফি-রফিকরা।

প’রে তিন যুবার ফিফটিতে পাঁচ উইকে’টের সহজ জয়ই পেয়েছিল হাবিবুল বাশারের দল।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *