নোয়াখালীতে গ্রেপ্তারের পর বন্দুকযুদ্ধে ১৩ মামলার আসামি নিহত

ফখরুদ্দিন মোবারক শাহ রিপন,নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ
নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে গ্রেপ্তারের পর পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক আসামি নিহত হয়েছেন। তার নাম রতন মিয়া (৩২)।

শনিবার রাত দেড়টার দিকে উপজেলার পদিপাড়ার ভূঁইয়াবাড়ি সংলগ্ন খালপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সোনাইমুড়ি থানার ওসি আবদুস সামাদ।
নিহত রতনের বাড়ি উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের মাহতাবপুর গ্রামে।

পুলিশের দাবি, নিহত রতনের বিরুদ্ধে হত্যাসহ বিভিন্ন অপরাধে ১৩টি মামলা রয়েছে।
ওসি আবদুস সামাদ বলেন, শনিবার বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে অস্ত্র ও মাদক মামলার পলাতক আসামি রতন মিয়াকে সোনাপুর এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে রাতে থানায় জিজ্ঞাসাবাদে তিনি তার কাছে অস্ত্র ও মাদক থাকার কথা স্বীকার করেন। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী রাত দেড়টার দিকে থানা-পুলিশের একটি দল তাকে নিয়ে অস্ত্র ও মাদক উদ্ধারে যায়। খালপাড় এলাকায় যাওয়ামাত্র রতনের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে। কয়েক মিনিট গোলাগুলির পর রতনের সহযোগীরা পালিয়ে যান। একপর্যায়ে ঘটনাস্থলে রতনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। তাৎক্ষণিক তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় পুলিশের দুই এসআইসহ তিনজন আহত হয়েছেন। তারা হলেন এসআই নাজমুল হোসেন ও উজ্জ্বল চন্দ্র বিশ্বাস এবং কনস্টেবল জসিম উদ্দিন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।ঘটনাস্থল থেকে একটি অত্যাধুনিক পাইপগান, চারটি কার্তুজ ও ৩১টি ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের লাশ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। ময়নাতদন্তের পর তার লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানান ওসি।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *