নোয়াখালীর সেনবাগে ওএমএস এর ১৫ বস্তা চাউলসহ দুই আ’লীগ নেতা গ্রেফতার

ফখরুদ্দি মোঃ মোবারক শাহ রিপন,স্টাফ রিপোর্টারঃ

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার নবীপুর ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মীসূচীর ১৫বস্তা চাউল উদ্ধার করা হয়েছে।এ ঘটনায় নবীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ জাহান সাজু ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ইসমাইল হোসেন খানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে শাহ জাহান সাজু চালের ডিলার।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্য আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সেনবাগ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ক্ষেমালিকা চাকমা। অভিযানে সহযোগিতা করেন উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অচিন্ত্য চাকমা ও সেনবাগ থানা পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নবীপুরের ডিলার শাহজাহান সাজু সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর আওতায় ১০টাকা মূল্যের চাউল সুবিধাভোগীদের কাছে বিক্রি না করে বস্তা প্রতি চাউল বাহিরে বিক্রি করেন। গত কয়েক সপ্তাহ থেকে চলে তার এই কার্যক্রম। তাকে এ কাজে সহযোগিতা করেন ইমসাইল হোসেন নামের এ আওয়ামী লীগ নেতা। বিষয়টি সেনবাগ উপজেলা প্রশাসনকে জানালে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চালিয়ে ‘শেখ হাসিনার বাংলাদেশ ক্ষুধা হবে নিরুদ্দেশ’ এ শ্লোগান লেখা ১৫টি বস্তায় ৪৫০ কেজি চাউলসহ তাদের দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়।

নবীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিন উল্যাহ বিএসসি বলেন, চাউলের ডিলার ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা শাহজাহান সাজু ইউনিয়নের কয়েকটি বাড়ীতে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর চাউল বস্তা প্রতি বিক্রি করে দিয়েছেন।

সেনবাগ উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক অচিন্ত্য চাকমা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে নবীপুর ইউনিয়নের ৬টি বাড়ীতে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ওইবাড়ী গুলোর কয়েকটি ঘর থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচীর ১৫বস্তা চাউল উদ্ধার করা হয়েছে। প্রতি বস্তায় ৩০কেজি করে চাউল রয়েছে। অভিযানকালে চাউলের তিনটি খালি বস্তাও উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, চাউল উদ্ধারকালে ক্রেতারা জানান তারা প্রতি বস্তা চাউল ডিলার শাহজাহানের নিকট থেকে ৯০০-৯৫০ ও ১০০০ টাকা দামে ক্রয় করেছেন।

সেনবাগ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইফুল ইসলাম মজুমদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সরকারি চাউল উদ্ধারের ঘটনায় উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বাদী হয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে সেনবাগ থানায়২১ এপ্রিল মামলা দায়ের করেন, মামলা নং ১২।

এব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবদুল বাতেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,আসামীদের বিরুদ্ধে সরকারী চাউল চুরির অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ খবর এলাকার চর্তুদিকে ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মানুষ চাউল চোরদেরকে এক নজর দেখার জন্য ভীড় জমায়।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *