পটুয়াখালীতে  ভূমি ব্যবস্থাপনা ও সেবায়  ইনফরমেশন টেকনোলোজির প্রয়োগ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্স শুরু

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ
পটুয়াখালী জেলায় ভূমি ব্যবস্থাপনা ও সেবায়  ইনফরমেশন টেকনোলোজির প্রয়োগ  শীর্ষক চারদিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কোর্স শুরু  হয়েছে। আজ ২৭ জানুয়ারি ২০২০ তারিখ পটুয়াখালী জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এ  প্রশিক্ষাণ কর্মসূচি  শুরু হয়। পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক মোঃ মতিউল ইসলাম চৌধুরী এ প্রশিক্ষণ কমর্সূচির শুভ উদ্বোধন করেন। প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বিভাগের উপ-ভূমি সংস্কার কমিশনার তরফদার মোঃ আক্তার জামীল। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কোর্স পরিচালক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)  জনাব মোঃ মামুনুর রশিদ।  উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন পটুয়াখালীর আরডিসি বকুল চন্দ্র কবিরাজ ।

প্রশিক্ষণে ভূমি ব্যবস্থাপনায় তথ্য প্রযুক্তির প্রয়োগ, ভূমি তথ্য সেবা ও কাঠামো, ই-মিউটেশন, ইউনিয়ন ও উপজেলা ভূমি অফিসের রেজিস্টার সংরক্ষণ ও হালনাগাদ করণ, নামজারি রিভিউ ও মিস মোকদ্দমা, ভূমি উন্নয়ন কর আদায় ও প্রতিবেদন প্রেরণ, রেন্ট সার্টিফিকেট মামলা, খাসজমি ও সায়রাত মহল ব্যাবস্থাপনা, এসএফ লিখন পদ্ধতি, উত্তরাধিকার সম্পর্কিত সংশ্লিষ্ট বিধি-বিধান প্রভৃতি সম্পর্কে প্রশিক্ষণার্থীদের ধারণা প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন,  ভূমি ব্যবস্থাপনার ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে ভূমি ব্যবস্থাপনার দুর্নীতি দূর করা হবে। তিনি দুর্নীতিমুক্ত ভূমি অফিস তৈরিতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের আহবান  জানান। বিশেষ অতিথি বলেন, তথ্য প্রযুক্তির এ যুগে ভূমি ব্যবস্থাপনায় ও ভূমি সেবায় ইনফরমেশন টেকনোলজি ব্যবহারের কোনো বিকল্প নেই। জনদুর্ভোগ ও হয়রানি বন্ধে ইনফরমেশন টেকনোলজির ব্যবহার একটা গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার হিসেবে কাজ করতে পারে। সে লক্ষ্যে ভূমি মন্ত্রণালয় এবং ভূমি সংস্কার বোর্ড কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে ভূমি ব্যবস্থাপনাকে আধুনিকায়নের লক্ষে ল্যান্ড ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এলআইএমএস) প্রণীত হয়েছে। দেশের সবকয়টি জেলাতে ই-মিউটেশন চালু করা হয়েছে যার সুফল জনগণ পেতে শুরু করেছে। এছাড়া ভূমি সংক্রান্ত সেবা সহজ করতে সারাদেশের ভূমি ব্যবস্থাপনা ও সেবা প্রদান পদ্ধতিকে অটোমেশনের আওতায় আনার কাজ চলছে। তিনি হয়রানিমুক্ত পরিবেশে সেবা প্রদানের জন্য ভূমি অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আহবান  জানান। উল্লেখ্য, পটুয়াখালী জেলার সর্বমোট ২৪ জন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা, সার্টিফিকেট সহকারী, অফিস সহকারী ও নামজারী সহকারীবৃন্দ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করছেন। এছাড়া, প্রশিক্ষণে কালেক্টরেটের সহকারী কমিশনারবৃন্দও উপস্থিত ছিলেন।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *