প্র’ধানমন্ত্রীর আর্থিক স’হায়তা: রংপুরের তা’লিকায় স্থান পেয়েছেন বরিশালের না’রী।

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে কর্মহীন ও হতদরিদ্র পরিবারে নগদ আর্থিক অনুদান প্রদানের ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্থানীয়ভাবে গঠিত কমিটির মাধ্যমে এ লক্ষ্যে তালিকা প্রণয়নের কাজ শুরু হয়েছে। তবে সুবিধাভোগীদের নামের এই তালিকা তৈরিতে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ২৯নং ওয়ার্ডে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে।

তালিকায় উল্লেখ করা ব্যক্তির নাম, ঠিাকানা ও মুঠোফোন নম্বরে বিভ্রান্তিকর তথ্য পাওয়া গেছে। এমনকি এই ওয়ার্ডের তালিকায় স্থান পেয়েছেন বরিশালের লোকও। আবার ঠিকানা ঠিক থাকলেও ফোন নম্বর দেয়া হয়েছে অন্য উপজেলার ব্যক্তির। এমন নানা অনিয়মের বিষয়ে স্থানীয়রা রংপুর জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন।

তালিকায় উল্লেখিত নামের ব্যক্তিদের লিখিত অভিযোগ পর্যালোচনা করে এবং কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ২৯নং ওয়ার্ডের তালিকা তৈরির জন্য কাউন্সিলর মোক্তার হোসেনকে আহ্বায়ক এবং ওই ওয়ার্ডের ডিজিটাল উদ্যোক্তা রাকিব হাসান রুবেলকে সদস্য সচিব করে আট সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিতে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, শিক্ষকসহ আরও চারজনের নাম রয়েছে। কমিটির সদস্যরা বিভিন্ন এলাকা ভাগ করে নিয়ে নামের তালিকা সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর অফিসে জমা দেন। এরপর কমিটির সদস্য সচিব নামগুলো লিপিবদ্ধ করে ১৬৯৯ জনের নামের তালিকা সংশ্লিষ্ট দফতরে জমা দেন।

এদিকে ওই তালিকা অনুযায়ী খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, ১৪৮৮নং সিরিয়ালে থাকা আবুল হোসেনের যে ঠিকানা ও ফোন নম্বর দেয়া হয়েছে তা ভুয়া। ওই ফোন নম্বরে ফোন করলে যিনি রিসিভ করেন সেই নারী জানান তার বাড়ি বরিশালে।

১৫০৩নং সিরিয়ালে সুলতানা আক্তার হোসেন নামে খোর্দ্দ রংপুর ঠিকানায় যে মুঠোফোন নম্বর উল্লেখ আছে সেই নম্বরে যোগোযোগ করা হলে নূর মোহাম্মদ হোসেন নামে এক ব্যক্তি কল রিসিভ করে বলেন সুলতানা আক্তার হোসেন তার বাড়ির পাশের এক নারী। এ সময় তিনি নিজের নাম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে কিনা তা এই প্রতিবেদকের কাছে জানতে চান।

ওই নাম অনুযায়ী (নুর মোহাম্মদ হোসেন) ১৫০৪নং সিরিয়ালে যে মুঠোফোন নম্বর দেয়া হয়েছে সেই নম্বরে যোগোযোগ করা হলে পীরগাছা উপজেলার কল্যাণী ইউনিয়নের এক ব্যক্তি বলেন তালিকায় তার ফোন নম্বর কিভাবে উঠল সেটা জানা নেই তার।

১৪৯৯ ও ১৫০৭নং সিরিয়ালে খোর্দ্দ রংপুরের ঠিকানায় যে মুঠোফোন নম্বর দেয়া হয়েছে সেই নম্বর দুটিতে একাধিকবার কল দিলেও কেউ রিসিভ করেননি। ওই ওয়ার্ডের খোর্দ্দ রংপুর, গোসাইবাড়ি, দেওয়ানটুলি, কলেজ মোড়সহ বিভিন্ন এলাকাতেই এমন অসংখ্য অনিয়ম হয়েছে বলে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেকেই বলছেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আসবে। হয়তো তা আত্মসাতের পাঁয়তারা করা হচ্ছে।

এসব অনিয়মের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর মোক্তার হোসেন বলেন, কমিটির সদস্যরা বিভিন্ন এলাকার দায়িত্ব নিয়ে নামের তালিকা করেছেন। তাদের দেয়া নামের তালিকায় অনিয়ম হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।

১৪৮৮ নম্বর সিরিয়ালে খোর্দ্দ রংপুরের ঠিকানায় বরিশালের ব্যক্তির নাম অন্তর্ভুক্তসহ একাধিক অনিয়মের বিষয়ে জানতে চাইলে ওই এলাকার দায়িত্বে থাকা ২৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান বলেন, বিষয়টি জানা ছিল না। অনিয়ম হয়েছে কিনা তা খোঁজ নিয়ে জানাব।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সৈয়দ এনামুল কবির বলেন, অনিয়মের একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনা তদন্তের জন্য রংপুর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনের পর এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments
custom_html_banner1

One thought on “প্র’ধানমন্ত্রীর আর্থিক স’হায়তা: রংপুরের তা’লিকায় স্থান পেয়েছেন বরিশালের না’রী।

  • May 17, 2020 at 5:45 am
    Permalink

    আমি প্রতিদিনের আপভেট খবর পড়তে চাই

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *