বে’য়াদবি, অ’হংকারের স’কল মাত্রা অ’তিক্রম ক’রলেন নো’বেল

ভা’রতের সারেগামাপা রিয়েলিটি শোতে অংশ নিয়ে আলোচনায় আসেন বাংলাদেশের উঠতি তরুণ সঙ্গীতশিল্পী মাঈনুল আহসান নোবেল।
দুই বাংলার দর্শকরাই তার গায়কী’’তে মুগ্ধ।

তবে নিজের করা অনেক মন্তব্যে অহংকার প্রকাশ পেয়েছে এই উঠতি সঙ্গীতশিল্পীর।মঙ্গলবার দেশের

মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিকে প্রায় চ্যালেঞ্জই ছুঁড়ে দিলেন নোবেল। এখানেই শেষ নয় তার

ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে বিভিন্ন পোস্ট ও কমেন্টবক্সে অহংকার, বেয়াদবীর সকল মাত্রা অ’তিক্রম

করেছেন তিনি। ভক্তরা ধিক্কার জানাচ্ছেন নোবেলকে।

তার দাবি গত ১০ বছরে এই দেশের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি দাঁড়া হতেই পারেনি। নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে নোবেল

লিখেছেন, ‌‌‘বাংলাদেশে তো গত ১০ বছরে ভালো করে কেউ মিউজিকই করেনি। দাঁড়াও তোমা’রলেজেন্ডদের না হয় আমিই শিখাবো, কিভাবে ২০২০ সালে মিউজিক করতে হয়।’

তিনি আরো লিখেন, বলেন, ‘দু-বছর আগে জন্ম নিয়েছি আপনাদের ভালবাসা নিয়ে। দু-বছরে ফ্লপ/হিট গানের

সংখ্যা দুই।তোমা’র মনের ভেতর – অনুপম রায় (National Award winner), আ’গুনপাখি – শান্তনু মৈত্র (National Award winner)’

নোবেল বলেন, তোমাদের লেজেন্ড গত দশ বছর ধরে কয়টা ফ্লপ অথবা হিট রিলিজ করেছে কমেন্টস্ সেকশানে জানাও। থুক্কু বাংলাদেশে তো গত ১০ বছরে

ভালো করে কেউ মিউজিকই করেনি। দাঁড়াও তোমা’র লেজেন্ডদের না হয় আমিই শিখাবো, কিভাবে ২০২০ সালে মিউজিক করতে হয়।

আরও এক পোস্টে নোবেল লিখেছেন, গান রিলিজের আগে প্রায় ১০ হাজার গাধার প্যান্ট, থুক্কু ব্যান খোলা হবে। যাতে করে গাধা গুলো মানুষ হবার দ্বিতীয় সুযোগ পায়।

বাই দা রাস্তা (way), আজকের পোস্টটা কিন্তু গাধা ধ’রার ফাঁদ। এই ফাঁ’দে পা দিলেই শেষ। হা হা হা। ইতি নোবেল
শুধু বিভিন্ন অরুচিকর পোস্টেই শেষ নয়। কমেন্টবক্সেও বিভিন্ন অরুচিকর মন্তব্য ও আক্রমনাত্বক কথা বলে যাচ্ছেন এই তারকা।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *