1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan :
  2. alireza.kg2014@gmail.com : Ali Reza Sumon : Ali Reza Sumon
  3. hrbiplob2021@gmail.com : News Editor : News Editor
সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট কিশোরগঞ্জে কোরবানির ডিজিটাল পশুর হাট কুড়িগ্রাম জেলা যুবলীগের উদ্যোগে অন্ধ প্রতিবন্ধীদের মাঝে নগদ টাকা ও খাদ্য বিতরণ কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বিনামূল্যে শাক-সবজি বাজার উ‌দ্বোধন করিমগঞ্জ থেকে গাঁজা ও নগদ অর্থ’সহ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‍্যাব আশরাফ আলী সোহান একজন তরুন উদ্যোক্তা সব্যসা‌চী লেখক ও ক‌বি ‌সৈয়দ শামসুল হ‌কের সমাধী‌তে কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলী‌গের শ্রদ্ধা বাংলা’র শিক্ষক গাইছেন হিন্দিতে! কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক দানিস আর নেই হিয়া ইলেক্ট্রনিক্সকে অবাঞ্ছিতকরন প্রসঙ্গে কিশোরগঞ্জে বিশাল আকৃতির ষাঁড় নাম তার ভাটির রাজা; কুরবানিতে বিক্রয়ের জন্য প্রস্তুত

ভারত আমাদের শত্রু বুঝতে পারাই বড় অর্জন -নূরুল কবীর।

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : শুক্রবার, ২৬ জুন, ২০২০
  • ৬৩ সংবাদটি দেখা হয়েছে

প্রখ্যাত সাং’বাদিক ইংরেজি দৈনিক নিউ এইজ স’ম্পাদক নূরুল কবির বলেছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রীর দি’ল্লি সফরে বাংলাদেশের অর্জন নেই বলা যাবে না।

বড় অ’র্জন হ’লো ভারতকে চিনতে পারা। ভারত যে আমাদের (বাংলাদেশ) শ’ত্রু এটার প্রমাণ হয়ে গেছে শেখ হাসিনার দিল্লি সফরে। বাংলাদেশের ভূ-খন্ডের ম’ধ্য দিয়ে এ’করাজ্য থেকে আরেক রাজ্যে ভারত দ্রব্যাদি, পণ্য নিয়ে যাচ্ছে।

এ’তে খা’রাপ কিছু দেখি না; গোঁড়ামির কিছু নেই। নে’পাল এবং ভুটানের সঙ্গে ব্যবসা করতে চাইলে তারা মধ্যস্বত্বভোগীর মতো ব্যবসা চায় কেন?ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দিল্লির চাণক্যপুরীতে। তারা চাণক্যনীতিতে অভ্যস্ত।

তাই ভা’রত ক’খনোই প্রতিবেশী দেশের বন্ধু হতে পারে না। গতকাল চ্যানেল আই-এর টকশো তৃতীয় মাত্রায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি ব’লেন, দে’শে আওয়ামী লীগ ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করছে; আর বিএনপি করছে ধর্মকেন্দ্রিক রাজনীতি।

জিল্লুর রহমানের স’ঞ্চালনায় ট’কশোর নুরুল কবিরের বক্তব্যের ‘চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো।নূরুল ক’বির বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর একটা দিক থেকে সফল।

একটা দেশের দু’একটা রাজনৈতিক দল এবং গুটিকয়েক বুদ্ধিজীবী যেই প্রতিবেশীকে বন্ধু রাষ্ট্র হিসেবে চিহ্নিত করে। তারা যে আসলে বন্ধু নয়, এদেশের মানুষ এ সফরের মাধ্যমে এটা বুঝতে পেরেছে।

রাষ্ট্র যে’হেতু এ’কটি রা’জনৈতিক ব্যবস্থা, সে রাষ্ট্রকে টিকে থাকার জন্য তার যেমন শত্রæ-মিত্র চেনা দরকার। রা’ষ্ট্র থাকলেই ব্য’বস্থা-বাণিজ্য, বিদ্যা-শিক্ষা, আয়-উন্নতি হওয়ার কথা।

ফলে একটা বৃহৎ প্র’তিবেশী যে বন্ধু নয়, সেটা বুঝতে পারা একটা ভী’ষণ রাজনৈতিক সাফল্য।কেননা তিস্তা নদীসহ ৫৪টি অভিন্ন নদীর পানি ন্যায্য হিসা আ’ন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী বাংলাদেশের পাওয়ার কথা তার কোনোটিই হয়নি।

তিস্তা চু’ক্তি হ’য় হয় করেও শেষ পর্যন্ত হয়নি। ভারতের কিছু কিছু মিডিয়া যারা বাংলাদেশের স্বা’র্থবিরোধী তা’রা এবং এখানেও (বাংলাদেশে) কেউ কেউ মিনমিনিয়ে বলার চেষ্টা করেছে, যে মমতা ব্যানার্জি নাকি এটা করতে দিচ্ছে না।

আমরা স’বাই জানি, ভারতের সংবিধান অনুযায়ী বিদেশের স’ঙ্গে সম্পর্ক তৈরি করার ক্ষেত্রে অথবা সম্পর্ক ন’ষ্ট করার ক্ষেত্রে অর্থাৎ তার পররাষ্ট্রবিষয়ক ব্যা’পার কেন্দ্রীয় সরকারের জুরিসডিকশনই একমাত্র জুরিসডিকশন।

সেখানে রা’জ্যগুলোর ‘কি’ছুই করার থাকে না। এখানে খুব স্পষ্ট করে বোঝা যায়, পশ্চিমবঙ্গকে আ’সলে কে’ন্দ্রীয় সরকার বা রাজনৈতিক ও কূটনৈকিতকরা একটা উপলক্ষ হিসেবে ধরে নিয়ে বাংলাদেশকে পানি থেকে বঞ্চিত করতে চায়।

বছ’রের প’র বছর যে রাষ্ট্র তার নিকটতম প্রতিবেশীকে আ’ন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী ন্যায্য পাওনা দেয় না।

তাকে ব’ন্ধু মনে করার যু’ক্তিসঙ্গত কারণ বাংলাদেশের মানুষ দেখে বলে আমার মনে হয় না।যে’টা ঠিক ধর্ম রা’ষ্ট্র চায় না, অন্যান্য ইসলামিক ফোর্সেসগুলো চায়।

কিন্তু ধ’র্মভিত্তিক রা’জনীতি সে করে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ মুখে ধর্ম নিরপেক্ষ রাজনীতির কথা বলে। কিন্তু সে আসলে ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে। বিএনপি যে ধ’র্মভিত্তিক রাজনীতি করে এটা নিয়ে খুব বেশি বি’তর্ক, সংশয় বা বিভ্রান্তি বাংলাদেশের সমাজে নেই।

তার রা’জনীতি শে’ষ পর্যন্ত ইসলামী জাতীয়তাবাদের রাজনীতি। আর সাম্প্রতিক ইতিহাসের কথা বললে, এরশাদের নেতৃত্বাধীন শা’সনের পরে যে, ক’থিত গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার উন্মেষ শুরু হয়েছিল, নির্বাচনী এক ধরনের গণতন্ত্রের কথা।

১৯৯১ সা’লের প’র ‘থেকে মুখে মুখে প্রতিদিন প্রতিবেলায় জামায়াতে ইসলামিকে দেশের শত্রæ হিসেবে ঘোষণা দেয়ার পরেও বিএনপি’র বিরুদ্ধে ক্ষমতায় যাওয়ার রাজনীতিতে আওয়ামী লীগকে জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে তত্ত¡

বধা’য়ক স’রকারের জন্য একসঙ্গে এক টেবিলে বসে এক রাস্তায় সংগ্রাম করতে দেখেছি। ২০০৫ সালের আগে আওয়ামী লীগ খেলাফত মজলিসের সঙ্গে ৪ দফা চুক্তি করেছিল।জীবনের জন্য হয়তো কৌশল দরকার পরে কিন্তু কৌশলটাই যখন জীবন হয়ে দাঁড়ায়, তখন সেই জীবনের প্রতি আত্মমর্যাশীল মানুষ কখনই শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে না।

আ’গামী নি’র্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমাদের দেশে এই মুহূর্তে নিঃসন্দেহে একটা যথার্থভাবে নির্বাচিত সরকার নাই। রাজনৈতিকভাবে লেজিটিমেসি নাই, নায্যতা নাই এমন একটা সরকার ক্ষমতায় রয়েছে।

এই স’রকার এ’ক ধরনের নিজের কথা ও পদ্ধতি ছাড়া অন্য কোনো পদ্ধতি রাষ্ট্র চালাবার ক্ষেত্রে রাজনৈতিক মতামতের ক্ষেত্রের অন্য কোনো রাজনৈতিক মতামত সম্মান করার তো দূরের কথা স্বীকৃতি দিতে রাজি না।

তিনি বলেন, এ’রকম একটা স্বৈ’রতান্ত্রিক শক্তি এই মুহূর্তে বাংলাদেশে অধিষ্ঠিত রয়েছে। যারা সমস্ত জায়গায় একমুখী করেছে। তবে এই বৈরী প’রিবেশেও যারা বিরোধী দলে থাকে তাদের যে দায়িত্ব তা পালনের ক্ষেত্রে শতভাগ ব্যর্থ হয়েছে বিএনপি।

যে অর্থে একটা গণ’তান্ত্রিক ব্যবস্থা উপহার দে’বার জন্য আওয়ামী লীগ শতভাগ ব্যর্থ একটা রাজনৈতিক দল, সেই অর্থে মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য যে দায়িত্ব পালন করা দরকার তাতে একশ ভাগ ব্যর্থ বিএনপি।

এই দ’লটি নি’জ দ’লের প্রতি দায়িত্ব, নিজ দলের নেতাকর্মীদের একটি ইউনিফর্ম ধারণা দেয়ার ক্ষে’ত্রেও ব্য’র্থতার পরিচয় দিয়েছে। প্রতিদিন প্রায় ৪-৫ জন নেতা ৪-৫ ধরনের পরস্পরবিরোধী কথাবার্তা বলছে।

তা’দের নে’তাকর্মীদের বিভ্রান্ত করতে সরকারের প্রয়োজন হয় না, নিজেদের নেতাদের মাধ্যমেই দলের নেতাকর্মীরা বিভ্রান্ত হয়ে পরে। সুষ্ঠু রা’জনৈতিক প্র’তিযোগিতাভিত্তিক নির্বাচনের জন্য যে ধরনের রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান দরকার তা এখন অনুপস্থিত।

আ’ওয়ামী লী’গের সঙ্কট হচ্ছে আওয়ামী লীগের জন্য সামনে অত্যন্ত কঠিন সময় আসছে। সেটা প্রধানমন্ত্রীর তৎপরতা, কথাবার্তা ও চেষ্টার মাধ্যমে দেখা যায়।

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

All rights reserved © 2021 Newsmonitor24.com
Theme Customized BY IT Rony