ম’ন্ত্রীত্ব ছাড়ার কারণ জানালেন সো’হেল তাজ।

বাংলাদেশের প্র’থম প্রধান মন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমেদের ছে’লে সোহেল তাজ প্রায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এসে দেশের মানুষকে পথ দেখানোর চেষ্টা করেন। যু’ক্তরাষ্ট্র থেকে বুধবার (৬ মে) ফেসবুক লাইভে এসে এবার নিজের মন্ত্রীত্ব ছাড়া নিয়ে কথা বলেছেন তিনি। এ সময় সোহেল তাজ কথা বলতে গিয়ে কেঁদে উঠেন।

ক’য়েকবার কেঁদে দেশের কথা, বাবা-মা’র কথা বলেন।বিশেষ করে তার প্রিয় কাপাসিয়ার জনগণের কথা বলেন। কোনো দায়িত্ব শতভাগ পালন করতে না পারলে তা থেকে সরে আসা উচিত বলে মনে করেন সাবেক এই স্বরাষ্ট্র ক্ষমতার মুকুট পড়ে থাকার মতো মানুষ আমি ব্যক্তিগতভাবে না’- উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি দিলে হান্ড্রেড পার্সেন্ট দেব।

আমা’র কাছে সে সময় মনে হয়েছে এ পবিত্র দায়িত্ব আমি কোয়ালিটি দিয়ে বা হান্ড্রেড পার্সেন্ট দিয়ে করতে পারছি না যে কোনো কারণেই হোক। তো আমি মনে করেছি এখানে থেকে সরে যাওয়াটাই বেটার এবং আমি যদি থেকে যাই তাহলে একটা মুকুট পড়ে থাকা হবে।বঙ্গবন্ধুর অ’ত্যন্ত ঘনিষ্ঠ তাজউদ্দীন পুত্র সোহেল তাজ আরও বলেন, ‘আমাদের মানসিক কালচার হয়ে দাঁড়িয়েছে যে কেউ যদি ভালো কাজ করে। তাহলে ভাবছেন হয়তো নির্বাচন করবে। নমিনেশন নিবে।

আ’সলে আমি তা মানতে নারাজ। ভালো কাজ হবে একেবারে নিঃস্বার্থভাবে।’ তিনি বলেন, যুবসমাজের হতাশাকে পজেটিভলী গাইড করতে পারি এবং আমাদের ভিতরে যদি বিশ্বা’স আনতে পারি যে আম’রাও পারি।আমাদের ভিতরেও সেই মেধা শক্তি আছে। আম’রা যদি বিদেশে গিয়ে কাজ করতে পারি। আম’রা সেই ভালো কাজটা কেন দেশে করতে পারব না। আর এখন যদি ওই হতাশাগ্রস্থ মানুষদের সঠিক ভাবে তৈরি করতে পারি।

তা’হলে সেই মা’নুষগুলো আগামী ২৫-৩০ বছর পর দেশের কাজে লাগবে। হয়তো আমি বা আম’রা দেখে যেতে পারবোনা। কিন্তু আমা’র ছে’লে বা আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম দেখবেন। সাবেক এই স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি একজন সাধারণ মানুষ। আমি আমা’র সাধ্যমত মতো ভালো কাজ করে যাচ্ছি। আমাদের দেশপ্রে’ম শুরু হবে নিজের থেকে। নিজের বাড়ি থেকে।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *