ম’হানবীকে নিয়ে অরুচিকর ম’ন্তব্য শেয়ার, হিন্দু ব্যবসায়ী গ্রে’ফতার।

হযরত মুহাম্ম’দ (স.) কে নিয়ে কটূক্তি করা ফেইসবুক স্ট্যাটাস শেয়ার করায় ভোলার মনুপরার এক হিন্দু মাছ ব্যবসায়ীর দোকানে হা’মলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে উত্তেজিত মু’সল্লিরা।এ সময় ৩টি দোকান ঘর ভাঙচুর করে হা’মলাকারীরা। পরে লা’ঠিচার্জ ও ফাঁকা গু’লি ছুড়ে পু’লিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে ৬ জন আ’হত হয়েছে বলে জানা গেছে। এদিকে পু’লিশ অ’ভিযু’ক্ত ব্যবসায়ীকে গ্রে’ফতার করেছে।

শুক্রবার (১৫ মে) জুমা’র নামাজের পর মনপুরার কাউয়ারটেক চৌমহনী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার জেরে জুমা’র নামাজের পর কিছু মু’সল্লি বি’ক্ষোভ মিছিল করে এসে শ্রীরামের মালিকানা ৩টি দোকানে ভাঙচুর চালায়। পরে পু’লিশ লার্ঠিচার্জ ও ফাকা গু’লি করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পরিস্থিতি এখন পু’লিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।ও’সি আরও জানান, ঘটনা প্রকাশ পাওয়ার পর দুপুরে অ’ভিযু’ক্ত শ্রীরাম দাসকে পু’লিশ গ্রে’ফতার করেছে।

তা’র বি’রুদ্ধে মা’মলার প্রস্তুতি চলছে।সরকারি চাকরিজীবীদের ১৩৬০ কোটি টাকা দিচ্ছে সরকার
করো’নাকালীন সরকারি চাকুরিজীবীদের প্রণোদনা এবং আ’ক্রান্ত হয়ে মৃ’ত্যুবরণ সংশ্লিষ্ট ক্ষতিপূরণ খাতে এক হাজার ৩৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এর মধ্যে বেশির ভাগ অর্থ সরকারি চাকরিজীবীদের মধ্যে সেবাদানরত অবস্থায় কেউ করো’না আ’ক্রান্ত হলে বা মৃ’ত্যুবরণ করলে ক্ষতিপূরণ খাতে বরাদ্দ রাখা রয়েছে। আর বাকি অর্থ যাবে করো’নায় সেবাদানরত ডাক্তার-নার্সসহ সরকারি চাকরিজীবীদের প্রণোদনা খাতে।

অ’র্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।সূত্র মতে, করো’নাভাই’রাস মোকাবেলায় বিভিন্ন সরকারি কর্মক’র্তা-কর্মচারী প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কাজ করে চলেছেন। এসব চাকুরের মধ্যে রয়েছেন ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, মাঠপ্রশাসনের কর্মক’র্তা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, সশস্ত্রবাহিনীর সদস্য। তাদেরকে প্রণোদনা দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।তবে ১৪ লাখ সরকারি চাকরিজীবীর সবাই এ প্রণোদনার আওতায় আসবে কি না তা এখনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

এ ক্ষে’ত্রে যারা বেশি ঝুঁ’কিপূর্ণ কাজ করছেন তাদেরকেই অগ্রাধিকার দেয়া হচ্ছে। এ জন্য একটি তালিকা করা হচ্ছে। তালিকায় প্রত্যক্ষভাবে নিয়োজিত প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের রাখা হচ্ছে।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *