যৌ’নপল্লী থেকে ১২৮ জন ত’রুণীকে বাঁ’চিয়েছেন সুনীল।

ব’হু ছ’বিতে যেমন তিনি হিরোর চরিত্রে অ’ভিনয় করেছেন, তেমন কয়েকটিতে দেখা গেছে ভিলেনের চরিত্রেও। তার ঝুলিতে আছে বেশ কিছু ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড।১৯৯৬ সালের একদিন মহারাষ্ট্রের কামাঠিপুরা যৌ’নপল্লীতে পুলিশ আচমকাই হা’না দেয়। ৪৫০ জনের বেশি নারীকে সেখান থেকে উ’দ্ধার করা হয়, যাদের বেশিরভাগেরই বয়স ১৪ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে।প্রায় প্রত্যেককেই জো’র করে দে’হ ব্যবসায় নামানো হয়েছিল, বেশিরভাগই তখন ছিল নাবালিকা।

উ’দ্ধার হ’ওয়া ১২৮ জন ছিলেন নেপালের বাসিন্দা। তাদের কাছে ছিল না বয়সের প্রমাণ ও পাসপোর্ট।নেপাল স’রকারও তাদের ফিরিয়ে নিতে পয়সা খরচ করতে নারাজ ছিল। আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, যখন সবাই প্রায় বাড়ি ফেরার আশা ছেড়ে দিয়েছিল ঠিক তখনই ত্রাতার ভূমিকায় আবির্ভাব হয় সুনীলের।ওই সব নারীদের জন্য বিমানের ব্যবস্থা করেন।

তা’দের নি’রাপদে বাড়ি পৌঁছার পুরো তদারকির ভার নিজের কাঁধে নেন বলিউডের এই নায়ক।সুনীলের শাশুড়ি বিপুলা কাদরির একটি এনজিও ছিল। নিজে সমস্ত খরচ বহন করলেও এই ঘটনার সম্পূর্ণ ক্রেডিট তিনি দেন মুম্বাই পুলিশ ও শাশুড়ি পরিচালিত সংস্থাকে। শুধু তাই নয়, মিডিয়ার কাছেও এ ব্যাপারে টুঁ শব্দটি করেননি।

প’রবর্তীকালে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ওই সব নারীর নিরাপত্তা সবচেয়ে বেশি গু’রুত্বপূর্ণ ছিল। যদি মিডিয়াকে এর মধ্যে জড়াতেন তা হলে তাদের পরিচয় প্রকাশ্যে চলে আসার আ’শঙ্কা ছিল।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *