স’রকার চায় না গরিব মা’নুষ বেঁচে থাকুক’- রি’জভী।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আজ দেশে সাংবাদিক, পুলিশ সদস্য করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছেন। এভাবে দেশে লাশের সারি বৃদ্ধি পাচ্ছে। অথচ সরকার করোনা রোগীদের বাঁচাতে উন্নত হাসপাতালের ব্যবস্থা করেনি।

ক্ষু’ধার্ত মানুষ দিন আনে দিন খায়। সরকার চায় না গরিব মানুষ বেঁচে থাকুক।শুক্রবার সকালে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদীখান উপজেলার নিমতলা এলাকায় কেন্দ্রীয় বিএনপির স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপুর উদ্যোগে ৩ শতাধিক দরিদ্র মানুষের মধ্যে সেমাই, চিনি, চাল, ডাল, তেলসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণকালে এ সব কথা বলেন তিনি।রিজভী বলেন, এ দুর্যোগের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে আমরা ত্রাণ দিচ্ছি। দুঃখের বিষয় হল, সরকার এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেনি।

তা’রা ত্রাণ বিতরণে নিজেদের লোক নিয়োগ দিয়েছে। আর নেতাকর্মীরা লুটে খাচ্ছে ত্রাণ।রিজভী আরও বলেন, লকডাউন শাটডাউন মেনে চলতে হবে, সাবধান হয়েই কাজ করতে হবে- এটা হচ্ছে করোনার মূল প্রতিষেধক। আজ দেশে সাংবাদিক মারা যাচ্ছে, পুলিশ সদস্য মারা যাচ্ছে। অথচ সরকার করোনা রোগীদের বাঁচাতে উন্নত হাসপাতালের ব্যবস্থা করেনি। সরকার একবার বলে লকডাউন শিথিল, আরেকবার বলছে লকডাউন চলবে- এভাবে মানুষকে বিভ্রান্ত করছে।তিনি আরও বলেন, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হলেও ক্ষুধার্ত গরিব ও অসহায় মানুষে পক্ষে থাকব।

তা’রপরও সরকার নিপীড়ন নির্যাতন করছে। ভয়ংকর মহামারির মধ্যেও ধরপাকড় অব্যাহত রেখেছে।এ সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সিরাজদীখান উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল কুদ্দুস ধীরন, কেন্দ্রীয় যুবদলের যুগ্ম-সাংগঠনিক সম্পাদক সোহেল আহমেদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সভাপতি আওলাদ হোসেন উজ্জল প্রমুখ।পরে জেলার শ্রীনগর উপজেলার বীরতারা ইউনিয়নের সাতঘরিয়া এলাকায় হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন রুহুল কবির রিজভী।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *