সৌদিতে ক’রোনা আ’ক্রান্তদের জমজমের পা’নি পান করানোর নি’র্দেশ।

সৌ’দি আরবে প্রা’ণঘা’তী করো’নাভাই’রাসে আ’ক্রা’ন্ত রো’গীদের জমজমের পানি সরবরাহের নির্দেশ দিয়েছে দেশটির হারামাইন প্রেসিডেন্সির প্রধান ড. শায়েখ আবদুর রহমান বিন আব্দুল আজিজ আস সুদাইস।

সা’মাজিক ও জাতীয় দায়িত্ববোধ থেকে তিনি এ ঘোষণা দেন।শায়েখ সুদাইসের ঘোষণার পর থেকে সৌদি আরবের বিভিন্ন হাসপাতালে করো’নায় আ’ক্রা’ন্ত রো’গীদের জমজমের পানি বিতরণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

এ ছা’ড়া পবিত্র নগরী মক্কা ও ম’দিনা মসজিদে নববীর অধিদ’প্ত রও তাদের নিজস্ব তত্ত্বাবধানে শুধুমাত্র প্রা’ণঘা’তী করো’নায় আ’ক্রা’ন্ত রো’গীদের জন্য জমজমের পানি বিতরণ করছেন।উল্লেখ্য, জমজম মক্কার মসজিদুল হারামের কাছে অবস্থিত একটি প্রসি’দ্ধ কূপ। পবিত্র কাবা ও এই কূপের মধ্যে দূরত্ব মাত্র ৩৮ গজের।

হ’জ ও উমরা আ’দায়কারীর জন্য বিশেষভাবে এবং পৃথিবীর সব মু’সলমানের জন্য সাধারণভাবে জমজমের পানি পান করা মুস্তাহাব। সহিহ হাদিসে ইরশাদ হয়েছে, নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজে জমজম থেকে পানি পান করেছেন।হযরত আয়েশা (রা.) বর্ণনা করেন, হযরত রাসূলুল্লাহ (সা.) নিজের স”ঙ্গে পাত্রে ও মশকে করে জমজমের পানি বহন করতেন।

তা অ’সুস্থদের ও’পর ছিটিয়ে দিতেন এবং তাদের পান করাতেন। সুনানে তিরমিজির এ বর্ণনা থেকে এ কথাও জানা যায় যে, জমজমের পানি বহন করা জায়েজ। আর যারা জমজম কূপের কাছে নয়, তাদের পান করানো নববী সুন্নত।

Facebook Comments
custom_html_banner1

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *