1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan :
  2. alireza.kg2014@gmail.com : Ali Reza Sumon : Ali Reza Sumon
  3. hrbiplob2021@gmail.com : News Editor : News Editor
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট কিশোরগঞ্জ পবিস ঠিকাদার কল্যাণ সমিতির সভাপতি এনামুল কবির জুলহাস ও সম্পাদক মোঃ আব্দুল কাইয়ুম কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় বিশ্ব এন্টিমাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ পালিত ৬ দিনে মামলা নিষ্পত্তি কিশোরগঞ্জে ইউএইচএন্ডএফপিও ফোরামের পরিচিতি ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনা রোধকল্পে নিসচা’র প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জে জাতীয় নিরাপদ দিবস উপলক্ষে বর্নাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হলেন আবু তাহের নিকলীতে পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন কিশোরগঞ্জে জাতীয় স্যানিটেশন মাস শুরু পাগলা মসজিদের এবার মিলল ১৫ বস্তায় ৩ কোটি ৮৯ লাখ ৭০ হাজার ৮৮২ টাকা

সৎ মায়ের সং’সারে বেড়ে উঠা একটি মে’য়ের বা’স্তব জীবনের গ’ল্প, পড়ে চো’খে পানি চলে এ’লো।

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ২৫ মে, ২০২০
  • ২৬১ সংবাদটি দেখা হয়েছে

মা’কে হা’রিয়েছি সেই ছোট বেলায়। বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করেন। সৎ মায়ের সংসারে অন্যান্য ভাই বোনদের সাথে বেড়ে উঠি কিছুটা অযত্নে আর অবহেলায়।হুট করেই প্রে’ম আসে আমা’র জীবনে। আমি ভালোবেসে ফেলি অ’ভিকে। আমিও সুখের সংসার সাজাতে চেয়েছিলাম ভালোবাসার মানুষটার হাতটা আঁকড়ে ধরে। বিয়েও করেছিলাম সেই মানুষটাকে। ভালোবাসলে তাকে জীবনে পেতে হয়.আর না পেলেই শুরু হয়ে যায় ব্যার্থতার গল্প গুলো। কেউ কাউকে ছেড়ে চলে গেলে বা অন্যত্র বিয়ে করলে শুরু হয়ে যায় একপক্ষীয়ভাবে তাকে দোষারোপ করা।

কি’ন্তু কেউ কারো অ’পারগতা মানতে বা বুঝতে রাজী নয়। যাই হোক কথায় আছে ভালোবাসার মানুষটাকে জীবনে পেলে নাকি তখন ভালোবাসাটা আর থাকে না।থাকে শুধু সেই মানুষ টা। কি লাভ সেই মানুষটা থেকে। একসময় সেই ভালোবাসাহীন মানুষটা বির’ক্তির কারণ হয়ে উঠে। আমা’র জীবনে ও ঠিক এমনটাই ঘটেছে। বড্ড ভালোবেসে বিয়ে করেছি অ’ভিকে।অ’ভি একটা ভালো চাকরী ও করে। তার পরিবার ও মোটামুটি স্বচ্ছল। কিন্তু মা ম’রা এই আমাকে তার পরিবার প্রথম থেকেই অবজ্ঞা করতে থাকে।

ন’তুন বৌ হিসেবে অ’ভি আমাকে তার মা বাবার কাছে রেখে সে তার কর্মস্থলে চলে যায়।কেনই বা তার গ’লায় ঝুলে পড়েছি। কেন আমা’র বাবা মোটা অংকের যৌ’তুক দেয় নি। ভরি ভরি অলংকার গড়িয়ে দেয় নি। বলতাম বাবার যা সাম’র্থ্য ছিলো তাতো দিয়েছো। আরো অনেক কিছুই দিবে বলেছে আস্তে আস্তে। কিন্তু তারা সেসব কথায় কান না দিয়ে যা তা ব্যবহার করতো আমা’র সাথে।আমাকে খালি হাতে বিদায় করার জন্যই নাকি অ’ভির পেছনে লেলিয়ে দিয়েছে। সব শুনতাম.. আর কা’ন্না করতাম। নতুন পরিবেশ, নতুন মানুষ। মনের কথা বলার মত কেউ ছিলো না।

তা’ই নিজে কেঁদে আবার নিজেই উঠে গিয়ে সংসারের কাজে মন দিতাম। অ’ভি যখন বাড়ীতে দুই একদিনের জন্য আসতো এসব বলে ঝামেলা বাড়াতে চাইতাম না। কিন্তু… যখন ধৈর্যের বাঁধ ভেঙ্গে গেলো। অ’ভিকে সব বললাম।ঠিকমত খোঁজ খবর নেয় না। মাসে, ছয়মাসে বাড়ী আসে। সে আসলেই তার বাবা মা রাজ্যের অ’ভিযোগের ভান্ডার খুলে বসেন। অ’ভির অ’ত্যাচার শুরু হয়ে যায়। অ’ভির অ’ত্যাচারের মাত্রা দিন দিন বাড়তেই থাকে। হায়রে ভালোবাসা!এসব দেখলে ভালোবাসাও স্বয়ং লজ্জায় মুখ লুকোবে।

কি’ছুদিন পর খবর পেলাম অ’ভির কর্মস্থলে এক মে’য়ের সাথে স’ম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছে। বিয়েও করতে চলেছে। কাঁদলাম। ছোট্ট সোনামণিকে বুকে জড়িয়ে ধরে ইচ্ছেমত কাঁদলাম। বাবাকে ডেকে আগের অ’ত্যাচার আর এখনকার ঘটনা সব কিছুই জানালাম। আমি যে আর সহ্য করতে পারছি না। শত হোক বাবার প্রথম স’ন্তান ছিলাম। সেই হিসেবে কিছুটা টান, মায়া তখনো অবশিষ্ট ছিলো। একদিন খবর পেলাম। আমা’র স্বামী তার সেই প্রে’মিকা নামের মে’য়েটিকে বিয়ে করে সুখে সংসার শুরু করেছেন শহরে। এটাই দেখার বাকী’ ছিলো।লাত্থি মা’রতে ইচ্ছে করলো সেই ভালোবাসাকে, যে ভালোবাসা সময়ের সাথে ফুরিয়ে গিয়ে প্রয়োজন হয়ে যায়। সেই প্রয়োজন শেষ হলে ছুঁড়ে ফে’লে দেয়। জলে চোখ ভিজে উঠলো।

মে’য়ের হাতটা শক্ত করে ধরে উঠে দাঁড়ালাম। অনেক সহ্য করেছি এই সংসারে। একদিন সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে ভেবে সব অ’ত্যাচার অবিচার মেনে নিয়েছিলাম। তার পরিণতি আজ এই হলো। বাবার সংসারে এসে উঠলাম। দুই দিন পর অ’ভি এলো।তার বিয়ের ব্যাপারটা নিয়ে আমাদের মাঝে কথা কা’টাকাটি হলো। এক পর্যায়ে তেড়ে এসে আমাকে অনেক মা’রলো। বাবা এসে থামালেন। তিনি অ’ভিকে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন আমা’র মে’য়ে আর তোমা’র সংসার করবে না। অ’ভি ফিরে গেলো। কেউ বুঝিয়ে আর কোন লাভ হলো না আমাদের।

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরও খবর

All rights reserved © 2021 Newsmonitor24.com
Theme Customized BY IT Rony