1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan : Ashraf Ali Sohan
  2. kgnewssumon@gmail.com : arsumon :
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট বন্দুকের নল ঠেকিয়ে ক্ষমতায় থাকা যাবে না- শায়েখে চরমোনাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে অবৈধ ইটভাটা; ১ লক্ষ টাকা জরিমানা নিকলীর সিংপুরে ভায়া পরীক্ষা ও ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত পাকুন্দিয়ায় ১০ হাজার কম্বল নিয়ে শীতার্তদের পাশে ছমির-হালিমা ট্রাস্ট কিশোরগঞ্জ জেলা রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের ক্ষুদ্র প্রয়াস অস্ট্রেলিয়ায় পড়তে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের নিয়ে উন্মুক্ত সেমিনার অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে ইটভাটাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কিশোরগঞ্জে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ শসৈনইমেক হাসপাতাল কিশোরগঞ্জে চালু হলো কিডনি ডায়ালাইসিস ইউনিট বিজয় দিবসে কুলিয়ারচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মুক্তিযোদ্ধা কেবিন ও প্যাথলজিক্যাল ল্যাব উদ্বোধন

পু’রুষ ছা’ড়াই মা হলেন এই বা’ঙালি ডাক্তার শি’উলি।

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ১৮ মে, ২০২০
  • ১২৯ সংবাদটি দেখা হয়েছে

পুরুষের স’ম্পূর্ণ স’হবাস ছাড়াই স্পা’র্ম ব্যাঙ্ক থেকে ‘শু’ক্রা’ণু নিয়ে বিয়ে ছাড়া’ই মা হযেছেন বাঙা’লী ডাক্তার শিউলি। অবশ্য এজন্য তার ল’ড়াইও কম ক’রতে হয় নাই।বাঙালী ডাক্তার প্র’মাণ করলেন, বাঙালী’রাই পথ দেখাবে সচে’তনতার ও বিজ্ঞা’নের নানা কী’র্তির। তারা আ’লোর দিশা।

অ’ন্ধকার অচ’লা’য়তন ভে’ঙে শিখা চিরন্তন। ডা. শিউলি মুখো’পাধ্যায়, নি’জেকে নিয়ে গে’লেন অনন্য উ’চ্চতায়।ডা. শিউলি মুখোপাধ্যায় কলকা’তার বাসিন্দা। দেড় বছর আগে তিনি একক মাতৃত্বের পথে হাঁটার সিদ্ধা’ন্ত নেন। তার একা’কিত্ব ঘোঁ’চাতে ও অন্যদের উৎসাহিত ক’রতে তিনি এ সিদ্ধা’ন্ত নেন বলে গণমাধ্যমকে জা’নিয়েছেন।

সে’ই ভাবনা থেকেই অবি’বাহিত শিউলি এখন এক পুত্র স’ন্তানের মা।৩৯ বছরের শিউলি’দেবী ছেলের নাম রে’খেছেন ‘রণ’। তবে ছেলের জ’ন্মের পরেই এক তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে শিউলির। তিনি বলেন, ‘ছেলের জ’ন্মের কাগ’জপত্রে বাবার নামের জায়গায় কী’ লিখবেন সেটা বুঝে উঠতে পার’ছিলেন না।প্রায় ১১ বছর আগে স্ত্রী-রো’গ চিকি’ৎসক হিসাবে কাজ শুরু করার পরে তার হাতেই জ’ন্ম হয়েছে অসংখ্য শি’শুর।

ত’বে সিজা’রিয়ান করে ছেলের জ’ন্মের পরে প্রথম তাকে কোলে নেওয়ার অনুভূতি একেবারে অন্যরকম বলেই জা’নান তিনি।শিউলি জা’নান, এমডি পড়ার সময় থেকেই বাড়ি থেকে তাকে বিয়ের জন্য চা’প দেয়া শুরু হয়। কিন্তু বিয়ে বিষয়টি ছিল তার অপছন্দের। বলেন, ‘বয়স বাড়ার স’ঙ্গে ক্রমশ একাকীত্বও বাড়ছিল। অল্পতেই রেগে যাচ্ছিলাম। তখনই এই সিদ্ধা’ন্ত নিলাম।

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরও খবর