1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan : Ashraf Ali Sohan
  2. kgnewssumon@gmail.com : arsumon :
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট বন্দুকের নল ঠেকিয়ে ক্ষমতায় থাকা যাবে না- শায়েখে চরমোনাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে অবৈধ ইটভাটা; ১ লক্ষ টাকা জরিমানা নিকলীর সিংপুরে ভায়া পরীক্ষা ও ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত পাকুন্দিয়ায় ১০ হাজার কম্বল নিয়ে শীতার্তদের পাশে ছমির-হালিমা ট্রাস্ট কিশোরগঞ্জ জেলা রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের ক্ষুদ্র প্রয়াস অস্ট্রেলিয়ায় পড়তে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের নিয়ে উন্মুক্ত সেমিনার অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে ইটভাটাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কিশোরগঞ্জে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ শসৈনইমেক হাসপাতাল কিশোরগঞ্জে চালু হলো কিডনি ডায়ালাইসিস ইউনিট বিজয় দিবসে কুলিয়ারচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মুক্তিযোদ্ধা কেবিন ও প্যাথলজিক্যাল ল্যাব উদ্বোধন

বাং’লাদেশে ক’রোনা ম’হামা’রী স’ময়ে ২৪ লাখ শি’শুর জন্ম হবে: ইউনিসেফ।

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : শুক্রবার, ৮ মে, ২০২০
  • ২৭৯ সংবাদটি দেখা হয়েছে

বাং’লাদেশে ক’রোনা ম’হামা’রী সময়ের মধ্যে প্রায় ২৪ লাখ শি’শুর জন্ম হবে।

আ’র বৈ’শ্বিকভাবে এর প্রভাবে জন্ম হবে প্রায় ১১ কোটি ৬০ লাখ শি’শুর।

গ’ত ১১ মা’র্চ কোভিড-১৯ ম’হামা’রী হিসেবে চিহ্নিত হওয়ার ৪০ সপ্তাহের মধ্যে এসব শি’শুর জন্ম হওয়ার কথা।

এ’ই ম’হামা’রীর প্রভাবে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যসেবা চা’পের মুখে এবং চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ প্রবাহ ব্যবস্থা বিঘ্নিত হচ্ছে বলে জাতিসংঘ শি’শু তহবিল, ইউনিসেফের ঢাকা অফিস থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বৃ’হস্পতিবার (৭ মে) ই’উনিসেফের ঢাকা অফিস থেকে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ই’উনিসেফ বলছে, প্রসূতি মা ও ন’বজাতকদের রূঢ় বাস্তবতার সম্মুখীন হতে হবে।

আ’গামী ১০ মে মা দিবসের প্রাক্কালে ইউনিসেফ সতর্ক করছে যে, কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণমূলক পদক্ষেপগুলো শি’শুর জন্মকালীন সেবার মতো জীবনরক্ষাকারী স্বাস্থ্যসেবা বিঘ্নিত করতে পারে।

যা লা’খ লা’খ অ’ন্তঃসত্ত্বা মা ও তাদের স’ন্তানদের বিরাট ঝুঁ’কিতে ফেলবে।

বি’শ্বের ১২৮টিরও বেশি দেশে এই দিবসটি স্বীকৃত।

ম’হামা’রী ঘোষণার পর নয় মাসে যেসব দেশে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক শি’শুর জন্মের আশা করা হচ্ছে, সেগুলো হলো: ভারত (দুই কোটি এক লাখ), চীন (এক কোটি ৩৫ লাখ), নাইজেরিয়া (৬৪ লাখ), পাকিস্তান (৫০ লাখ) ও ইন্দোনেশিয়া (৪০ লাখ)।

এ’গুলোর অ’ধিকাংশ দেশে ম’হামা’রীর আগ থেকেই ন’বজাতকের উচ্চ মৃ’ত্যু হার ছিল এবং কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে এই হার আরও বাড়তে পারে।

প্রা’তিষ্ঠানিক মাতৃমৃ’ত্যু হার ও ন’বজাতকের মৃ’ত্যু হারে তেমন কোনো পরিবর্তন না হলেও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যাচ্ছে, কোভিড-১৯ সং’কট শুরুর পর থেকে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রগুলোতে মাতৃ ও ন’বজাতকের স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ উল্লেখযোগ্যভাবে কমে গেছে।

উ’ল্লেখ্য, ৬৩টি জে’লা হাসপাতালের মধ্যে মাত্র ৩৩টিতে এখন সব ধরনের জরুরি গর্ভকালীন ও প্রসূতি সেবা দেওয়া হচ্ছে।

ইউ’নিসেফ স’তর্ক করেছে যে, বৈশ্বিকভাবে প্রাপ্ত তথ্য-প্রমাণ অ’ন্তঃসত্ত্বা মায়েদের অন্যদের চেয়ে কোভিড-১৯ এ বেশি ক্ষ’তিগ্রস্ত হওয়ার প্রমাণ না দিলেও বিভিন্ন দেশে তাদের গর্ভকালীন, স’ন্তান জন্মকালীন ও স’ন্তান জন্মের পরের সেবা পাওয়ার সুযোগ নিশ্চিত করতে হবে বলছে।

অ’সুস্থ ন’বজাতকের জরুরি সেবা লাগবে, যেহেতু তাদের মৃ’ত্যু ঝুঁ’কি বেশি থাকে।

এ’ছাড়া শি’শুকে বুকের দুধ খাওয়ানো শুরু করার জন্য সহায়তা এবং শি’শুকে সুস্থ রাখতে ও’ষুধ, টিকা ও পুষ্টি প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে হবে।

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরও খবর