1. ashrafali.sohankg@gmail.com : aasohan : Ashraf Ali Sohan
  2. kgnewssumon@gmail.com : arsumon :
বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:২৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:-
জাতীয় স্লোগান হিসেবে ‘জয় বাংলা’ ব্যবহারের নির্দেশঃ হাইকোর্ট বন্দুকের নল ঠেকিয়ে ক্ষমতায় থাকা যাবে না- শায়েখে চরমোনাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে অবৈধ ইটভাটা; ১ লক্ষ টাকা জরিমানা নিকলীর সিংপুরে ভায়া পরীক্ষা ও ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত পাকুন্দিয়ায় ১০ হাজার কম্বল নিয়ে শীতার্তদের পাশে ছমির-হালিমা ট্রাস্ট কিশোরগঞ্জ জেলা রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের ক্ষুদ্র প্রয়াস অস্ট্রেলিয়ায় পড়তে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের নিয়ে উন্মুক্ত সেমিনার অনুষ্ঠিত কিশোরগঞ্জে পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে ইটভাটাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা কিশোরগঞ্জে শব্দদূষণ নিয়ন্ত্রণে সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ শসৈনইমেক হাসপাতাল কিশোরগঞ্জে চালু হলো কিডনি ডায়ালাইসিস ইউনিট বিজয় দিবসে কুলিয়ারচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মুক্তিযোদ্ধা কেবিন ও প্যাথলজিক্যাল ল্যাব উদ্বোধন

সি’নেমা হল বন্ধ, ক’র্মচারীরা বিক্রি করছেন ই’ফতার।

রিপোর্টার:
  • সর্বশেষ আপডেট : সোমবার, ১১ মে, ২০২০
  • ১৯৯ সংবাদটি দেখা হয়েছে

বি’নোদন ডেস্ক-টানা কয়েক বছর থেকেই ঢাকাই চলচ্চিত্রে মন্দা অবস্থা বিরাজ করছে। মৃতপ্রায় ইন্ডাস্ট্রি খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে। এরই মাঝে নতুন করে যোগ হয়েছে করোনাভাইরাস।

এর’ফলে লোকসানের পাল্লাটা ভারী হচ্ছে হলমালিকদের। গেল ১৮ মার্চ থেকে দেশের সিনেমা হলগুলো বন্ধ। এমতাবস্থায় কর্মীরা দিশেহারা।এদিকে করোনাভাইরাসে কারণে সবকিছু সরকার বন্ধ ঘোষণা করলেও পরবর্তীতে সীমিত আকারে রেস্টুরেন্ট খোলার অনুমতি দেয়।

অ’নুমতি পাওয়ার পর রেস্টুরেন্টগুলোতে ইফতার সামগ্রী বিক্রি করে আসছে। অন্যদিকে হল বন্ধ থাকার কারণে আয় না থাকায় অনেক হলের কর্মচারীরা মানবতর জীবনযাপন করছেন। অনেকে বিক্রি করছেন ইফতার সামগ্রী।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ জেলায় অবস্থিত হীরক সিনেমা হলের কর্মচারী ছিলেন শাহীন মিয়া। হীরক সিনেমা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর খুব কষ্টেই কাটছে তার দিন। এ অবস্থায় জীবিকার তাগিদে ইফতার সামগ্রী বিক্রি করছেন তিনি।

তি’নি জানান, গেল কয়েক বছর থেকে হলের ব্যবসা হয় না। তাছাড়া একের পর এক হল বন্ধ হওয়ায় আমরা বেশ বিপাকে। অন্য কোনো কাজ না শেখায় এই পেশা ছাড়তে পারছি না।

অ’নেক কষ্টেই আছি। তাই ইফতার বিক্রি করে কিছু আয়ের চেষ্টা করছি।শুধু হীরক কিংবা জোনাকী নয় দেশের অধিকাংশ সিনেমা হলে পুরো রমজান মাসে এভাবেই লোকসানের হাত থেকে বাঁচতে কর্মচারীরা ইফতার বিক্রি করতেন। কিন্তু এবার করোনার প্রাদুর্ভাবে চিত্রটা ভিন্ন হয়েছে। তারপরেও কিছু কিছু হলের কর্মচারীরা ইফতার সামগ্রী বিক্রি করে যাচ্ছেন।

Facebook Comments Box

খবরটি পছন্দ হলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরও খবর